বিগত কয়েক দিনে বিশ্ব আর্থিক বাজারে নতুন আলোড়ন এসেছে. প্রধান প্রধান হার্ড কারেন্সির হারে তীব্র তারতম্য দেখা দিয়েছে জুলাই মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থাবর সম্পত্তির বিক্রি সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশের পর. সূচকগুলি যথেষ্ট কমেছে. কারবারী জগতের জন্য তা সঙ্কেত হয়ে ওঠে যে, মার্কিন অর্থনীতি তার বৃদ্ধির গতি হারাচ্ছে এবং নতুন মন্দার দিকে এগুচ্ছে. আর তার ফল হল- ডলারের হারের তীব্র হ্রাস. মঙ্গলবার স্টক- এক্সচেঞ্জে কেনাবেচার শেষে মার্কিনী মুদ্রা জাপানী ইয়েনের অনুপাতে বিগত ১৫ বছরের সর্বনিম্ন হারে পৌঁছোয়. ইউরো-র অনুপাতেও ডলারের হার কমেছে. সুইস ফ্রাঙ্ক উল্টে সাফল্য অর্জন করেছে. বাজার তাকে সঙ্কটের প্রবণতা বৃদ্ধির পরিবেশে নির্ভরযোগ্যভাবে পুঁজি সংরক্ষণের উপায় বলে বিবেচনা করছে.