রাশিয়াতে বিপর্যয়ের সময়ে যারা মানুষের পাশে দাঁড়ান, সাহায্য করেন, তাঁদের একটা তথ্য ভান্ডার শীগগিরই তৈরী হতে চলেছে. বিশ্বের বহু দেশেই এই ধরনের স্বেচ্ছাসেবক লোকেদের না ঠিকানা ও খবর দিয়ে তথ্য ভান্ডার রয়েছে. রাশিয়া তার কয়েক মিলিয়ন স্বেচ্ছাসেবক নিয়ে যে তালিকা তৈরী করতে চলেছে তা রাশিয়ার স্বেচ্ছাসেবক উন্নয়ন কেন্দ্রের প্রেসিডেন্ট গালিনা বদরেনকোভার মতে খুবই প্রয়োজনীয়, তাই তিনি বলেছেন:    "এটা একটা সম্মিলিত তথ্য ভান্ডার হবে, যেখানে সব ধরনের ক্ষেত্রে সাহায্য পাওয়ার বিষয়ে জানতে পারা যাবে. রাশিয়াতে স্বেচ্ছাসেবক কেন্দ্র, দুঃখের বিষয় হলেও খুব একটা বেশী নয়, তাদের দায়িত্ব এই রকম তালিকা তৈরী করা. এরাই চেষ্টা করছেন তালিকা তৈরীর, যেখানে সেই সব লোকেদের নাম রয়েছে, যারা স্বেচ্ছাসেবক হতে চান, তাদেরকেই বলা হবে অংশ নিতে, তাদের জন্যই ঠিক করা হবে কাজের জায়গা. আর সারা রাশিয়ার তথ্য ভান্ডারে তাঁদের কথাই থাকবে, যাঁরা যে কোন বিপর্যয়ে মানুষকে পেশাদারী ভাবে সাহায্য করতে চান. এই তথ্য ভান্ডারে শুধু তাঁদের নামই থাকবে না, থাকবে তাঁদের কথাও যাঁরা পেশাদার ভাবে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময়ে সাহায্য করা শিখতে চান".    কিছু দিন আগের দাবানলের সঙ্গে যুদ্ধের সময়ে দেখতে পাওয়া গেছে যে, রাশিয়াতে শুধু বিশাল সংখ্যক লোক সাহায্য জড় করে, তা বেছে, প্রয়োজনের জায়গায় পৌঁছে দেওয়ার জন্যই তৈরী নেই, বরং সেই রকম লোকেরাও আছেন, যাঁরা প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময়ে সক্রিয় ভাবে তার মোকাবিলা করতে চান. সুতরাং আগষ্ট মাসে আগুণ নেভানোর কাজে প্রায় চার হাজার স্বেচ্ছাসেবক যোগ দিয়েছিলেন. তাদের মধ্যে অনেকেই জীবনে প্রথম বিশেষ ধরনের যন্ত্রপাতি নিয়ে কাজ করেছেন, বলা যেতে পারে কাজের জায়গাতেই পেশার সঙ্গে পরিচিত হয়েছেন.রাশিয়ার তথ্য সংগ্রহ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী প্রায় অর্ধেক রাশিয়ার লোক যে কোন ধরনের স্বেচ্ছাসেবক হয়ে কাজ করতে তৈরী, কিন্তু সব সময়ে জানতেই পারেন না, কার কাছে গিয়ে কাজ করতে চাইতে হবে. প্রসঙ্গতঃ বিগত কিছু কাল ধরে রাশিয়াতে স্বেচ্ছাসেবকদের বয়স অনেকটাই কম হয়েছে. গালিনা বদরেনকোভা বলেছেন:    "প্রত্যেক বছর আমাদের কেন্দ্র রাশিয়ার অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবক সংস্থা গুলির সঙ্গে একসাথে ঐতিহ্য মেনে "সপ্তাহভর সেবা" অনুষ্ঠান করে থাকে. যেমন, এই বছরে এই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন প্রায় ১৬ লক্ষ লোক, যাদের মধ্যে শতকরা ৮০ ভাগ অল্পবয়সী. আর যদি আগের বছর গুলির সঙ্গে তুলনা করা হয়, তবে দেখা যাবে, বিগত কিছু সময় ধরে যুব সমাজের অংশ গ্রহণ বেড়েছে. যদি দশ বছর আগে এঁদের সংখ্যা হাজার দশেক হত, তবে বর্তমানে এঁরা দশ লক্ষের ও বেশী".    রাশিয়ার স্বেচ্ছাসেবকদের একটি সমস্যা হল – আয়োজক অংশের সক্রিয়তার বৃদ্ধি. কোন একটি সাময়িক কাজের জন্য, তা সে আগুণ নেভানোই হোক, অথবা ঝড়ের তাণ্ডবের বা অন্য কিছুর মোকাবিলাই হোক – দেখা যায় যে অনেকেই সাহায্য করতে চান. কিন্তু এই সবই ঘটে তাকে তাত্ক্ষণিক ভাবে – মানুষের ভাল করার ইচ্ছার কারণে. কিন্তু আগামী দিনে স্বেচ্ছাসেবকদের সাহায্যের প্রয়োজন শুধু প্রয়োজনীয় নয়, এমনকি তার বদল সম্ভব হবে না, তাই গালিনা বলেছেন:    "খুব শীঘ্রই রাশিয়াতে কয়েকটি খুব গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান হবে, যেখানে স্বেচ্ছাসেবক প্রয়োজন হয়ে পড়বে. এটা ২০১২ সালের এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ গুলির শীর্ষ বৈঠক, যেখানে প্রায় পাঁচ হাজাক স্বেচ্ছাসেবকের দরকার, তাতারস্থানে ইউনিভার্সিয়াড হবে, আর অবশ্যই ২০১৪ সালে সোচী শহরের শীত অলিম্পিক. সেখানে প্রায় ৭৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক দরকার পড়বে. সুতরাং কাজ আছে প্রচুর এবং এখানে স্বেচ্ছাসেবক খুবই প্রয়োজন".    এর মধ্যেই রাশিয়ার ক্রীড়া, পর্যটন ও যুব রাজনীতি মন্ত্রণালয়ের

0www.jaba.ru

সাইটে রাশিয়ার জাতীয় যুব রাজনীতির প্রকল্পের বাস্তবায়নের জন্য পরীক্ষামূলক ভাবে সারা রাশিয়া যুব স্বেচ্ছা সেবক তথ্য ভান্ডার তৈরী করা হচ্ছে.