রাশিয়ার প্রস্তাবে প্রতিষ্ঠিত সের্বিয়ার নিশ শহরের আন্তর্জাতিক বিপর্যয় নিরসন কেন্দ্র প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সঙ্গে লড়াই করার জন্য রাশিয়া ও ইউরোপের সম্মিলিত কাঠামোর ভিত্তি হতে পারে. এই সম্বন্ধে রেডিও রাশিয়াকে বলেছেন রাশিয়ার বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের পররাষ্ট্র সংক্রান্ত বিভাগের ডিরেক্টর ইউরি ব্রাঝনিকভ. বালকানের এই কেন্দ্রে অগ্নি নির্বাপণের জন্য বিমান বহর, মানবিক সহায়তার জন্য সামগ্রী ও মাইন নষ্ট করার জন্য ব্যাটালিয়ন থাকবে.এই রকম একটি কেন্দ্র প্রয়োজন তা এখন সকলেই বুঝতে পারছেন. প্রাকৃতিক বিপর্যয়, বন্যা ও দাবানল – যা এই গরমে ইউরোপ ও রাশিয়াতে প্রবল আকারে হয়েছে, তা রাজনীতিবিদদের বাধ্য করেছে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সঙ্গে একসাথে মোকাবিলা করার বিষয়ে বক্তব্য প্রকাশ করতে.ইউরোপীয় সংঘের মধ্যে অন্তর্দেশীয় ভাবে প্রাকৃতিক বিপর্যয় নিরসনের বিভাগ এর মধ্যেই তৈরী হয়েছে. কিন্তু বর্তমানের পরিস্থিতি দেখিয়ে দিয়েছে যে, মস্কো ও ব্রাসেলসের মধ্যে এই ধরনের কাঠামো তৈরী করা খুবই বাস্তবিক, সেই কথা বুধবার ঘোষণা করেছেন রাশিয়াতে ইউরোপীয় সংঘের দূতাবাসের প্রধান ফের্নান্দো ভালেনসুয়েলা. তাঁর কথা মতো, এই বিষয়ে চুক্তি রয়েছে, আর তা আরও নির্দিষ্ট করে বলা হবে, যখন দেশ গুলি বর্তমানের সঙ্কট কাটিয়ে উঠবে.মনে করিয়ে দেওয়া যেতে পারে যে, বছর দুয়েক আগে রাশিয়ার ত্রাণ কর্মীরা ইউরোপের লোকেদের বালকান অঞ্চলের জঙ্গলের দাবানল নিভাতে সাহায্য করেছিল, সুতরাং বিভিন্ন দেশের বিপর্যয় নিরসন কর্মীদের প্রায়ই কাঁধে কাঁধ দিয়ে বিপর্যয়ের ধাক্কা সামলাতে হয়. আর তাই সেই ধরনের পারস্পরিক সহযোগিতার কার্যকরী কাঠামো তৈরী করা স্বাভাবিক. এই প্রসঙ্গে ইউরি ব্রাঝনিকভ বলেছেন:"বাস্তবে সেই সমস্ত চুক্তি গুলিরই রূপায়ণ করা হতে চলেছে, যা নিয়ে বহু বছর ধরে আলোচনা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণের সময়ে. এখানে ইউরোপীয় সংঘ অবশ্যই একটি গুরুত্ত্বপূর্ণ কাঠামো, যারা সমস্ত কিছুই করে যৌথ নিরাপত্তাকে নিশ্ছিদ্র করার জন্য. আর রাশিয়া, সন্দেহ নেই যে, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মোকাবিলায় ইউরোপীয় সংঘের সাথে খুবই ঘনিষ্ঠ এবং সাফল্যের সাথে সহযোগিতা করে এসেছে সব সময়". যদিও রাশিয়া সরকারি ভাবে নিজেদের প্রতিবেশী দেশ গুলির কাছে সাহায্যের আবেদন করে নি, তবুও ইউরোপ পাশে নিশ্চেষ্ট হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে নি, এই সংঘের সদস্য দেশ গুলি থেকে ৫০০ ত্রাণ কর্মী পাঠানো হয়েছে, তার সঙ্গে প্রায় পনেরোটি হেলিকপ্টার ও বিমান পাঠিয়েছে.একই সময়ে বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী পরিস্থিতি ঠিক হতে চলেছে, রাশিয়াতে দাবানল এখন কমার মুখে, যদিও প্রাকৃতিক বিপদের সঙ্গে সম্পূর্ণ জয় সম্ভব হয়েছে বলতে এখনও দেরী আছে.