রুশ-মার্কিন সন্ত্রাসবিরোধী মহড়া তীক্ষ্ণদৃষ্টি ঈগল খুবই সফল হয়েছে. এমন মূল্যায়ন করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এয়ারো-কসমিক প্রতিরক্ষার সংযুক্ত অধিনায়কমন্ডলীর প্রতিনিধি কর্নেল টড বাল্ফ. তিনি বলেন, যদিও মহড়ার বিশ্লেষণ এখনও শেষ হয় নি, আমার দৃষ্টিভঙ্গী অনুযায়ী- এবং আমার স্থিরবিশ্বাস আমাদের রাশিয়ার সহকর্মীরাও একমত যে- এ ছিল বিপুল সাফল্য. বাল্ফের মতে, এ সব মহড়া আমাদের সুযোগ দেয় শীতল যুদ্ধের সময়ের মোকাবেলা থেকে সহযোগিতার যুগে উত্তীর্ণ হওয়ার, বিশেষ করে, সন্ত্রাসবাদী বিপদের বিরোধিতায়. মহড়ার চিত্রনাট্য অনুযায়ী, সন্ত্রাসবাদীরা মার্কিনী যাত্রীবাহী বিমান দখল করে নেয় এবং তারপর বিমানের সাথে যোগাযোগ ছিন্ন হয়. এ বিমানটিকে খুঁজে বার করা এবং তার সঙ্গ দেওয়ার জন্য বিপদ সঙ্কেত অনুযায়ী আকাশে তোলা হয় ফাইটার-বিমান এবং তাছাড়া অনুসন্ধানী বিমানঃ রাশিয়ার এ-৫০ মার্কা বিমান এবং মার্কিনী আওয়াক্স বিমান. মহড়ার প্রধান উদ্দেশ্য ছিল- দখল করা বিমানের সঙ্গ দেওয়া এবং তার নিয়ন্ত্রণ এক দেশের বিমান বাহিনীর হাত থেকে অন্য দেশের সহকর্মীদের হাতে সমর্পণ করা.