বিশকেকে অধিবেশনের পরে রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্র মন্ত্রী গিওর্গি কারাসিন ঘোষণা করেছেন যে, রাশিয়া বিভিন্ন ক্ষেত্রে কিরগিজিয়া দেশকে সাহায্য করা অব্যাহত রাখবে. তিনি উল্লেখ করেছেন যে, এক্ষেত্রে শুধু অর্থনৈতিক বা মানবিক সাহায্যের কথাই হচ্ছে না, বরং নিরাপত্তার ক্ষেত্রে সাহায্যের কথাও হচ্ছে. কূটনীতিবিদ মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, রাশিয়া কিরগিজিয়া দেশকে ২০ মিলিয়ন ডলার দান করেছে, বর্তমানে আরও ১০ মিলিয়ন ডলারের আরো একটি অনুদান দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে. এছাড়া বিনা সুদে ৩০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেওয়া হবে বলেও ঠিক করা হয়েছে. ২৭ জুলাই আন্তর্জাতিক অনুদান দাতাদের বিশকেক শহরের অধিবেশনে রাশিয়ার তরফ থেকে অংশগ্রহণ করা হবে বলে উপ পররাষ্ট্র মন্ত্রী কারাসিন জানিয়েছেন.