৯ থেকে ১১ জুলাই মস্কোতে ভিন্টেজ গাড়ীর প্রদর্শনী "অটো এক্সটিক – ২০১০" এ অংশ নিতে জড় হবে আট হাজারেরও বেশী বিরল পুরনো গাড়ী. তুশিনো বিমানবন্দরের মাঠে বিশ্বের ৯টি দেশের ক্লাবের সদস্যরা এখানে অংশ নেবেন.রাশিয়ার লোকেদের মনে হয়, অধুনাতম নেশা হয়েছে পুরনো গাড়ী সংগ্রহ করা. সবচেয়ে বেশী পুরনো গাড়ী নিজেদের গ্যারাজে জমানোর নেশা হয়েছে মস্কোর লোকেদের. শহরের পুরনো গাড়ী জমানো সংক্রান্ত ক্লাবের হিসেবে প্রতি বছর মস্কোতে পঞ্চাশটি অবধি বিরল পুরনো গাড়ী সারাই করা হচ্ছে, বিভিন্ন সারাই করার গ্যারাজে. সুতরাং তুশিনো বিমান বন্দরের বিশাল মাঠেও যে সব গাড়ীর জন্য জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না, তাতে আর অবাক হওয়ার কিছু নেই.যারা যন্ত্র ভালবাসেন, তাদের জন্য গত শতকের প্রথম দিকের গাড়ী বেশী প্রিয়. আমদের সময় পর্যন্ত খুব কমই প্রথম দিকের জনগনের জন্য প্রচুর হারে গাড়ী তৈরী হওয়ার সময়ের গাড়ী এখনও রয়েছে. ১৯২২ সালের একটি বিরল "ফোর্ড" গাড়ী রয়েছে সের্গেই সিমোনভ বলে একজন সংগ্রাহকের কাছে. এই বিরল গাড়ীর মালিক বলেছেন যে, এই মডেলের গাড়ী তৈরী হয়েছিল প্রায় ১৬ বছর ধরে! বর্তমানে সেই সময়ের সবচেয়ে বেশী তৈরী হওয়া গাড়ী একটি বিরল নমুনা, আর তাও খুবই অদ্ভূত! বাইরে থেকে দেখলে – বেড়াবার জন্য বড় লোকেদের মোটর লাগানো একটা ঠেলা গাড়ী. মালিক বলেছেন:"এই গাড়ী নিশ্চয়ই কোন একজন নাক উঁচু লোককে বয়ে নিয়ে যেত, কারণ গাড়ী টার ভিতরে মাত্র দুই জন লোকের জায়গা. আমরা এই রকমের আরও একটা গাড়ী আছে, সেটাতে চারজন বসতে পারে. দেখেই বোঝা যাচ্ছে এই গাড়ীতে প্রেমিকাকে নিয়ে বেড়াতে যাওয়া হত". এলভিস প্রেসলির সময়ের গাড়ীরও খুব কদর. গাড়ীর তখন গড়ন হয়েছিল ঢালু, কোন রকমের কোনা ছাড়া, ভেতরে চামড়ার বাঁধানো ভাল করে বসার জায়গা, গাড়ীর রঙ খুব উজ্জ্বল. এক বিরল "রোলস রয়েস" গাড়ীর মালিক ভিক্তর মাকুশকিন উল্লেখ করেছেন যে, তার ১৯৬০ এর দশকের গাড়ী কারখানা থেকে বের হওয়ার পর আর রঙ করা হয় নি. কারণ হল, তাঁর মতে যে, আগে গাড়ীর গায়ে ২০ প্রলেপ রঙ লাগানো হত, আর প্রতিটি স্তর আলাদা করে পালিশ করা হত. যদি ভিক্তর কখনও মস্কোর রাস্তায় তার আদরের গাড়ীটা নিয়ে বেড়াতে বেরোয়, তবে যত ট্রাফিক পুলিশ আছে, তারা সবাই ভিক্তরের গাড়ীটা থামায়, কারণ ৪৫ বছর আগের হলেও ভীষণ সুন্দর গাড়ী, কাছ থেকে দেখতে ইচ্ছে করে সবার."সবাই আমাকে একই প্রশ্ন করে, এটা "রোলস রয়েস"? আমি যেই বলি হ্যাঁ, "রোলস রয়েস", তারা অবাক চোখ করে বলে, পাগল হওয়ার মত সুন্দর দেখতে গাড়ী".আরও এক ধরনের গাড়ী হল সেই সব গাড়ী, যাদের মালিকেরা ছিলেন বিখ্যাত লোক. সংগ্রাহকেরা তাঁদের জীবনী সম্বন্ধেও মনোযোগ দিয়ে সমস্ত খবর রাখেন. সোভিয়েত দেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারন সম্পাদক লিওনিদ ব্রেজনেভের যে "নিশান" গাড়ীটি ছিল, তার বর্তমানের মালিক বরিস লাখমেতকিন. তিনি জানিয়েছেনঃ "যে, এই বাম দিকে স্টিয়ারিং দেওয়া গাড়ী তৈরী হয়েছিল এক বিশেষ প্রকল্পে ও এরকম গাড়ী মাত্র একটাই. এই গাড়ীর প্যানেল বোর্ড ও ছিল ব্যতিক্রমী"."এর রেডিও – বিশেষ করে লিওনিদ ব্রেজনেভের জন্য তৈরী করা হয়েছিল, এখানে সোভিয়েত দেশে তখন চালু আলট্রা শর্ট ওয়েভ প্রোগ্রাম শোনা যেত. আপনারা তো জানেন যে, বিশ্বে এই ধরনের তরঙ্গে আর কোথাও প্রোগ্রাম শোনা যেত না. তাই এই রকমের রেডিও আর একটাও নেই". সংগ্রাহকেরা বলেন যে, বিরল গাড়ী রাখা শুধু সম্মানের ব্যাপারই নয়, তার জন্য খরচ করতে হয় অনেক. একটি বিরল গাড়ী মেরামত করতে বিশেষজ্ঞদের মতে, গড়ে তিরিশ হাজার ডলার খরচ হয়, প্রসঙ্গতঃ পুরনো গাড়ীর মালিকেরা তাদের গাড়ী থেকে শুধু মানসিক আনন্দই পান না, অনেক সময় ভাল রোজগারও করতে পারেন. প্রায়ই বড় পুরনো লিমুজিন গাড়ী সিনেমা ও টেলিভিশন অনুষ্ঠানে বা বিজ্ঞাপনের জন্য ভাড়া করা হয়, আর যাদের নতুন বিয়ে হয়েছে, তারাও এই ধরনের গাড়ীতে বিয়ের দিন ঘুরতে ভাল বাসে.