যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্থা কির্গিজিয়ায় সৈন্যবাহিনী পাঠাবে না, তবে এ সংস্থার দেশগুলি এ প্রজাতন্ত্রকে সমস্ত সম্ভাব্য সাহায্য করবে, সেই সঙ্গে ওশ শহরের ঘটনাবলির তদন্তেও. এ সম্বন্ধে রিয়া নোভস্তি সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন সংস্থার প্রধান সচিব নিকোলাই বর্দিউঝা. তিনি ব্যাখ্যা করে বলেন যে, প্রজাতন্ত্রের শৃঙ্খলা রক্ষা সংস্থাগুলির হাতে তাদের সামনে এসে দাঁড়ানো কর্তব্য মীমাংসার জন্য প্রয়োজনীয় ক্ষমতা আছে. কির্গিজিয়ার দক্ষিণে ওশ শহরের, যেখানে জুন মাসে সঙ্ঘর্ষ ও লুঠপাট ঘটেছিল এবং শতাধিক লোক মারা গিয়েছিল, ঘটনাবলি সম্বন্ধে মন্তব্য করে বর্দিউঝা এ মত প্রকাশ করেন যে, এর পেছনে রয়েছে আন্তর্জাতিক চরমপন্থী সংস্থা. এ তথ্যও আছে যে, এ সব সংস্থার সদস্যরা বিশৃঙ্খলায় অংশগ্রহণ করেছিল এবং ওশ শহরের যেমন উজবেক তেমনই কির্গিজ বাসিন্দাদের উপর গুলি চালিয়েছিল, বলেন যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্থার প্রধান সচিব.