রাশিয়া আফ্রিকায় মা ও শিশু মৃত্যুর হার কমানোর জন্য  ৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করবে.জি ৮ শীর্ষ সম্মেলনে কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্তিবেন হারপার এক প্রশ্নের জবাবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেব এই উত্তর প্রদান করেন.জি-৮ শীর্ষ সম্মেলনে গরিব দেশের মা ও শিশুর ’’অধিকার’’ এই শিরোনামে শুরু হওয়া সভায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বক্তব্য রাখেন.রাশিয়ার নেতা জি-৮ এর শীর্ষ নেতাদের সাথে সাক্ষাত ছাড়া আফ্রিকা ও ল্যাটিন আমেরিকার কয়েকজন রাষ্ট্রপ্রধান যারা আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত হয়েছে,তাদের সাথে বৈঠকে মাদকদ্রব্য পাচারের বিরুদ্ধে একটি গ্লোবাল পরিকল্পনা গ্রহনের আহবান জানান.এই বিষয়টি একই সাথে সম্মেলনের আলোচ্য বিষয়ের অন্তর্ভুক্ত যা গরিব এবং অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্বশীল দেশ উভয়ের জন্যই গ্রহনযোগ্য কার্যকরী একটি বিষয়.কানাডায় একত্রিত হওয়া রাষ্ট্রপ্রধানদের এটিই একমাত্র পরিকল্পনা নয়.প্রসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীরা একই সাথে জি-৮ সম্মেলনের বিভিন্ন বিষয় ও জি-২০ এর অন্তর্গত রাষ্ট্রসমূহের নানা প্রশ্নাবলী  নিয়ে খোলামেলা আলোচনায় অংশ নিবেন.রেডিও রাশিয়ার বিশেষ প্রতিনিধি সিবিটলানা আন্দ্রেয়েবা কানাডা থেকে জানাচ্ছেন যে,আয়োজনকারী দেশের পক্ষ থেকে বিশ্ব নেতাদের প্রতি দেওয়া ঐ বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিশ্ব নেতারা কখনই হয়ত দেখেনি.সম্প্রতি অনুষ্ঠিতব্য জি-৮ সম্মেলন যা বিশ্বের পক্ষ্যে একটি নিরব ও নির্ধারিত আলোচ্যসূচিতে পরিনত হয়েছে, তাছাড়া বিশ্বের বৃহত জনগোষ্ঠীর দেশসমূহের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে ধনী দেশসমূহের নেতা বৈশ্বায়িক বৈষম্যতা সৃষ্টি করে নি এবং কানাডাও এর ব্যতিক্রম নয়.হান্তসবিল নামের শহরের মুসকোকায়  জি-৮ এর শীর্ষ নেতারা একত্রিত হয়েছেন.নিরাপত্তা ব্যবস্থা শুধুমাত্র এখানেই নয় বরং তা টরেন্টোতেও জোরদার করা হয়েছে যেখানে ইতিমধ্যে ১৯টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা  ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিরা উপস্থিত হয়েছে.যেই হোটেলে সম্মলনে  অংশগ্রহনকারীরা এবং সংবাদকর্মীরা অবস্থান করবে তার চারপাশ উঁচু বেরিকেড দেওয়া হয়েছে,শুধুমাত্র বিশেষ কার্ডের সাহায্যেই সেখানে প্রবেশ করা যাবে.এছাড়া ভবনের চারপাশে যে সব দোকানপাট ও গাড়ি পার্কি ব্যবস্থা রয়েছে তা সব বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে.গাড়ি ও পায়ে হাটা লোকজনদেরকে এখানে তেমন দেখা যাচ্ছে না.শহর নিবাসীরা বলছেন যে,এত নিরব এবং কম জনসংখ্যার এই শহর আমরা কখনও দেখি নি.সম্ভাবত এমনই পরিবেশ থাকবে সম্মেলনে অংশগ্রহনকারীদের মাঝে,কোন অপ্রিয় বিষয় নিয়ে বিরক্ত না হয়ে বরং কার্যকরীভাবে কাজ করতে হবে.বস্তুত.প্রথম দিনে মানবিক বিষয় ছাড়াও অর্থনৈতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা সম্ভব হয়েছে.রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সচিব আরকাদি দোভোরকোবিচ সাংবাদিকদের বলেন,রাশিয়ার তাদের পক্ষ থেকে সরাসরি দুটি বিষয়ে আলোকপাত করেছে,প্রথমটি হল-অর্থনীতির জন্য সহযোগীদেরকে বাজেক বৈষম্য কমানোর একটি পরিকল্পনা গ্রহন করতে হবে যা অন্যান্য দেশের জন্য তা উদাহরনস্বরূপ হিসাবে উল্লেখ করতে হবে.দ্বিতীয়টি হল-বিশ্বব্যপী মাদকপাচার বিরোধী কার্যক্রম বিষয়ে আবশ্যকীয় কাজ করা.তিনি বলেন ,রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেবের সেক্রেটারীর ভাষায় রাষ্ট্রসমূকে তাদের বর্তমান অবস্থা থেকেও আরও বেশী এই কাজে এগিয়ে আসতে হবে.জি- ৮ তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে.সম্মেলনের পুরো দিনে গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়, তা হলঃইরান ও চীনের পারমানবিক প্রকল্প এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম.পূর্বের যে কোন সময়ের তুলনায় এবারের কানাডার জি-৮ সম্মেলন তার ইতিহাসে সব থেকে স্বল্প সময়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে.তা হিসাবে দেড় দিন.জি-৮ সম্মেলনের কার্যক্রম তা জি-২০ সম্মেলনে চলমান থাকবে