কিরগিজস্তান মানবিক সাহায্য গ্রহন করছে.রাশিয়া থেকে জরুরি ত্রাণমন্ত্রনালয়ের বিমান ১৩০টন পণ্য নিয়ে বিশকেকে অবতরণ করেছে.ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ঔষধ,শুকনো খাবার ও দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র.বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার তথ্যমতে,ওশের ঐ জাতিগত দ্বন্দের ঘটনায় বিভিন্ন দেশের প্রায় ২ লক্ষ মানুষ কিরগিজস্তান ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়.লোকজন ভয়ে তাদের বাড়িঘর,কর্মস্থান ও অন্যান্য সবকিছু ছেড়ে চলে যায়.ওশ শহরে ঘটে যাওয়া রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বিষয়ে ইতিমধ্যে দেশটির আইনপ্রয়োগকারী কর্তৃপক্ষ সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ গ্রহন করেছে.দেশটির রাষ্ট্রপ্রধান মনে করছেন যে, এই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তারা সবাই সাবেক প্রেসিডেন্ট কুরমানবেক বাকিয়েবের লোকজন.কর্তৃপক্ষ আশ্বাষ দিয়েছে যে,তারা এই ঘটনায় জডিতদের খুঁজে বের করে উপযুক্ত শাস্তি প্রদান করবে.সর্বশেষ খবরে জাতিগত দ্বন্দে অন্তত ২০০ লোক নিহত হয়.যদিও দেশটির অন্তর্বর্তি সরকার রোজা আতুনবায়েবা বলনে,সত্যিকার অর্থে এই নিহতদের সংখ্যা আরও কয়েকগুন বেশী  হতে পারে.নিহতদের স্মরণে আজ বহস্পতিবার কিরগিজস্তানে ২য় দিনের মত শোক দিবস পালিত হচ্ছে.দেশের সব স্থানে এখন শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে.যদিও সবার মাঝে একধরনের সংশয় কাজ করছে.এই ঘটনার পর রাজধানী বিশকেকের প্রতিটি প্রবেশদ্বারে বিশেষ গতিরোধক সংকেত বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং সামরিকবাহিনী সতর্ক অবস্থায় আছে.