রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ কির্গিজিয়ায় অত্যাচারের নিন্দে করেছে এবং রক্তক্ষয় বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘ মনে করে, কির্গিজিয়ার দক্ষিণে, যেখানে সঙ্ঘর্ষ ঘটেছে, মানবতাবাদী সাহায্য পৌঁছোনোর জন্য  অবিলম্বে করিডোর গঠন করা দরকার, এবং ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য এ সপ্তাহে জরুরী অর্থ সংগ্রহের কথা ঘোষণা করতে চায়. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে সোমবারের জরুরী পরামর্শ বৈঠকে. ঐ দিনই জানা যায় যে, যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্থার অংশগ্রহণকারীরা কির্গিজিয়ায় বিমান, সাঁজোয়া প্রযুক্তি, জ্বালানী ও সামরিক পরিবহণ পাঠাবে প্রজাতন্ত্রের দক্ষিণে পরিস্থিতি স্থিতিশীল করার জন্য. কির্গিজ ও উজবেকদের মাঝে সঙ্ঘর্ষ শুরু হয় ওশ শহরে ১১ই জুন রাতে, আর তারপর তা ছড়িয়ে পড়ে প্রতিবেশী জালাল-আবাদ প্রদেশে. এই ভাঙচুর ও বিশৃঙ্খলায়, শেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, নিহত হয়েছে ১৭০ জন, ১৭০০ জনেরও বেশি আহত হয়েছে. সোমবার জালাল-আবাদ প্রদেশ এবং ওশ শহরে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা এবং উজবেক সম্প্রদায়ের নেতারা সঙ্ঘর্ষ মীমাংসা নিয়ে আলাপ-আলোচনা চালান. গত রাতে প্রজাতন্ত্রের দক্ষিণে পরিস্থিতি অপেক্ষাকৃত শান্ত ছিল.