রুশিরা আজ রাশিয়া দিবস পালন করছে.রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় উত্সবগুলির মধ্যে এই দিনটি মূলত অন্যতম একটি জাতীয় উত্সবের দিন.এই দিবসটি আধুনিক রাশিায়ার গোড়াপত্তনের সেই দিনগুলোকে স্মরণ করিয়ে দেয়. দিবস.ঠিক ২০ বছর পূর্বে ১২জুন ১৯৯০ সন আরএসএফএসআর এর প্রতিনিধিরা চুড়ান্তভাবে একটি ঘোষণাপত্রে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সর্বভৌমত্ব কর্যকর করার সিদ্ধান্ত নেয়.ঠিক তখনও তা সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত ছিল.এর ঠিক ১ বছর পরই রাশিয়ার প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসাবে বরিস এলসনকে নির্বাচিত করা হয়.এই দিবসটি যদিও রুশিদের জন্য বাড়তি ছুটির একটি দিন এবং গত ১০ বছরে এই দিবসের সাথে একত্বতা ঘোষণাকারীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সমাজবিদরা মনে করছেন যে,এই উত্সব সত্যিকার অর্থে রাশিয়ার স্বাধিনতা এনে দিয়েছে.এ বিষয়ে রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বিস্তারিত জানাচ্ছেন বিশিষ্টি রাষ্ট্রবিজ্ঞানী আলোকসান্দ্রার সিপকো.তিনি বলেন-

"যদি ৯০ দশকের সাথে আমরা বর্তমান রাশিয়ার তুলনা করি তাহলে যে সাফল্য দেখতে পাওয়া যায় তা হল ভোটপ্রদান অধিকার না থাকা, স্বনির্ভর রাষ্ট্রগঠনের দিকে অগ্রগামী,নিজের সম্মানবোধ,নিজের নিরারত্তা ভুলে যাওয়া সেই সাথে সামরিক,অর্থনৈতিক ও সামাজিক ব্যবস্থা.তারপরও যদি আমরা এই দিবসের সূত্রপাতের ঘটনাকে অবহেলা যকরি  ,আমার মনে হয় যে তারা নিজেদের দেশ নিয়ে গর্ববোধ করে.যদি বিশ্ব সমস্যার দিকে তাকানো হয় তাহলে কোন সমস্যাই রাশিয়াকে বাদ দিয়ে সমাধান করা যাবে না.উদাহরস্বরুপ বলা যেতে পারে-ইরানের পারমানবিক সমস্যা ত্রবং ইজরাইল-আরব যুদ্ধ,এই সবক্ষেত্রেই আমরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছি.তাই আমি আধুনিক রাশিয়ার দৃষ্টিভঙ্গির সাথে সম্পর্ন একমত যে দেশ একটি আধুনিক পৃথিবী গড়ার কাজে নিয়োজিত এবং আমি আরও বলতে চাই যা মানবিক সমাজ".

সক্রিয় রাজনৈতীক ফন্ডের সভাপতি কিরিল তানিয়েব  মনে করেন যে, "বিগত ২০ বছরে রাশিয়া তার ঝুলিতে অনেক অবদান জমা করেছে,যার মধ্যে অন্যতম হল এখনও বিশ্বে পরাশক্তির দেশ হিসাবে নিজের দৃড় অবস্থান.

আমার কাছে অন্যতম একটি চিড় বলে মনে হয় দক্ষিন আমোরিকায় রাশিয়ার আগমন.এই সক্রিয়তা যা যুক্তরাষ্ট্রের সাথে রাশিয়ার সম্পর্ক একটি স্থানে আটকে থাকে যেখানে সদূরপ্রসারি এক চিড় আসে.আমরা দেশতে পাচ্ছি যে,রাশিয়া আফ্রিকার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং ইউরোপের ব্যাপারে রাশিয়া অনেক বেশী আগ্রহ প্রকাশ করছে. আরও অনেক প্রশ্নে রাশিয়ার নিরাবতা পালন করছে এবং আজকের দিনে ঐ পথের সমাধানের চেষ্টা চলছে.আমি মনে করি যে আধুনিক  বিশ্ব রাশিয়ার যে ভাবমূর্তি তা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে এবং তার কারণ হচ্ছে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি এখন অনেক বন্ধুত্বপূর্ণ.আমি মনে করি যে উন্নয়নের ধারা আরও বৃদ্ধি পাবে".

দিনটি উপলক্ষে আজ ক্রেমলিনে জাঁকজমক রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের পুরষ্কৃত করা হবে.বিকালে রেডস্কয়ার জুড়ে নির্মন করা হচ্ছে বিশাল স্টেজ.এখানেই চিরাচরিত গালা কনসার্ট অনুষ্ঠিত হবে.এবারে এই উত্সব আয়োজনকারিরা জানাচ্ছে যে, প্রযুক্তি ব্যবহার করে তা স্টেজে ঘোড়া এবং এমনকি গাড়ি প্রদর্শন করবে.আজ রাশিয়া জুড়েই এই দিনটি নান আয়োজনের মধ্যদিয়ে পালিত হবে.