রাশিয়া মাদকবিরোধী কোয়ালিশন কার্যক্রমে মূল দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত. রাশিয়ার ফেডারেল বিভাগের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের প্রধান রাশিয়ার সংবাদপত্রকে এ কথা জানান.আগামী ৯-১০ জুন মস্কোতে আফগানিস্তানের মাদকদ্রব্য সরবরাহ-বিশ্ব সম্প্রদায়কের দৃষ্টি আকর্ষন শীর্ষক সম্মেলনকে সামনে রেখে পত্রিকাটি বিকতর ইভানভের সাক্ষাকার প্রচার করে.

আজ থেকে ১০ বছর পূর্বে পৃথিবীতে ২ বারের মত কম হিরোইন সরবরাহ করা হত যা আজ শুধু এক আফগানিস্তানই সরবরাহ করছে.সেবনকারীর সংখ্যর দিক থেকে গতবছর ইউরোপের দেশগুলো প্রথম স্থানে রয়েছে.প্রতিবছর ইউরোপে শুধুমাত্র মাদকদ্রব্য সেবনের কারণে ১০ হাজার লোক নিহত হয়.

রাশিয়া মাদকদ্রব্য সেবনকারী দেশগুলোর সাথে কালো তালিয়া স্থান পেয়েছে.বিকতর ইভানব উল্লেখ করেন যে, একদিকে মাদক সেবনের কারণে নিহতের সংখ্যা ইউরোপের থেকেও অনেক বেশী .অন্ততপক্ষে প্রতিবছর মাদক সেবনের জন্য ৩০ হাজার রুশি প্রান হারাচ্ছে এবং এদের বেশীরভাগই হচ্ছে তরুন.এই ক্ষেত্রে আমাদের দেশ আফগানিস্তানের মাদকদ্রব্য দ্বারাই সবথেকে বেশী প্রভাবিত হচ্ছে তাই রাশিয়াকেই বিশ্বে মাদকবিরোধী কোয়ালিশন কার্যক্রমে মূল দায়িত্ব পালন করত হবে.বিকতর ইভানব দৃড়তার সাথে বলেন,মাদকদব্যের উপদ্রব একবিংশ শতাব্দীর প্রধান সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে যা বিংশ শতাব্দীর ২য় বিশ্ব যুদ্ধের মতই সংবেদনশীল একটি বিষয় তাই ইউরোপীয় ইউনিয়ন,ন্যাটো ও রাশিয়ার সম্মিলিত উদ্দোগ ছাড়া এই সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয়.

রাশিয়ার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের প্রধান ন্যাটোর দেওয়া বক্তব্যকে বড় ধরনের ভুল বলে উল্লেখ করেন,ন্যাটো জানায় যে, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান আফগানিস্তানের সৈন্যদের মাঝে বিরুপ প্রভাব ফেলতে পারে যারা সন্ত্রাসবাদ দমনের দায়িত্ব পালন করছে.অখচ তা সম্পর্ণ বিপরীত,বিকতর ইভানভ মনে করেন , আফগানিস্তানে যুদ্ধ পরিস্থিতিই আফিম উত্পাদনে উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করেছে.

বিকতর ইভানব জানাচ্ছেন যে রাশিয়া আফগানিস্তানের মাদকের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্টি অভিযান চালানোর প্রস্তাব দিচ্ছে.এর অংশ হিসাবে তিনি বলেন যে,রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করে আফিমের পপি নষ্ট করে দেওয়া যায়.এছাড়া আরও রয়েছে আফিমের উত্পাদন কমানোর জন্য বিশেষ উপাদান যদিও তা স্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর.

রাশিয়ার এই আহবান আফগানিস্তানের মাদকদ্রব্যের সমস্যার একটি সুষ্ঠ সমাধান দিতে পারে জানালেন প্রাচ্য বিশারদ ইউরি করুপনব.রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি জানান,

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সামান্যতম স্বদিচ্ছা থাকলে পাচঁবছরের মধ্যে এই সমস্যার একটি সমাধান করা সম্ভব.বিকতর ইভানবের দেওয়া নকঁশা নির্দিষ্টিভাবেই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে নিয়ে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে.একটি কমিটি গঠন করা দরকার এবং মাত্র পাচঁবছরের মধ্যেই এই প্রশ্নের সমাধান করা যাবে.মনে করছেন  রাশিয়ার প্রাচ্য বিশারদ ইউরি করুপনব.

এই সব সমস্যাই মস্কোর আন্তর্জাতিক ফোরামে আলোচনা করা হবে.ফোরামে মাদকবিরোধী আন্দোলন দেশসমূহের প্রধান ও রাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারি বিভাগ,রাজনীতি বিশারদ,খ্যাতিমান বিশেষজ্ঞরা উপস্থিত থাকবেন.

বিকতর ইভানব উল্লেখ করে বলেন যে, ফোরাম আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মাঝে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে যা বিশ্বের সবার জন্যই একই সমাস্যা সমাধানে সহায়তা করবে.