রাশিয়ার প্রধান উত্সব বিজয় দিবস উদযাপন করছে রুশি জাতি.৬৫ বছর পূর্বে পশ্চিমা সহযোগি দেশগুলোর সহযোগিতায় তত্কালিন সোভিয়েত ইউনিয়নের সৈন্যদের হাতে হিটলারের জার্মানী পরাজিত হয়.প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে পাওয়া তথ্যে জানা যায় যে প্রায় ২৬.৬ মিলিয়ন লোক নিহত হয় যাদের মধ্যে তিন ভাগের দুই ভাগই ছিল সোভিয়েত ইউনিয়নের সাধারন নাগরিক.আর এই সংখ্যা দ্বিতীয় মহাযুদ্ধে নিহতের সংখ্যার অর্ধের থেকেও বেশী,তা জার্মানী ও তার মিত্র রাষ্ট্র এবং অন্য সব দেশ যারা ফ্যাসিজমের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নিহত হয়েছে.উত্সব উদযাপনের প্রানকেন্দ্র হল রাশিয়ার রাজধানী মস্কো.রাশিয়ার রাজধানী রেড স্কয়ারে ইতিমধ্যে বিজয়ের ৬৫ বছর উপলক্ষে বিশেষ কুঁজকাওয়াজ শুরু হয়েছে.জাকঁজমকপূর্ন ঐ কুঁচকাওয়াজ শুরুর উদ্ধোধনীতে ব্রিগেডিয়ার সৈনিকদের ঢোলের বাদ্য বেঁজে ওঠে ও রাশিয়ার জাতীয় পতাকাবাহী এবং বিজয়ের পতাকাবাহী বিশেষ একটি দল.এবারের এই বিজয় দিবসের কুঁজকাওয়াজে হিটলারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কোয়ালিশন দেশসমূহ প্রথমবারের মত অংশ নিয়েছে,দেশগুলো হল যুক্তরাষ্ট্র,যুক্তরাজ্য,ফ্রান্স এবং একই সাথে পোল্যান্ড ও স্বাধীন কমনওয়েলফ রাষ্ট্রসমূহ.কুঁজকাওয়াজের ঐতিহাসিক অংশ হচ্ছে ট্যাঙ্ক ৩৪ এর কৌশল কার্ষক্রম উদ্ধোধন.কুঁজকাওয়াজে আধুনিক রন প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হয়.এর অংশ হিসাবে প্রথম প্রদর্শন করা হয় নতুন রকেট কমপ্লেক্স তোপল –এম. কুঁজকাওয়াজ সমাপ্ত হয় যুদ্ধ বিমান প্রদর্শনী শো’র মধ্য দিয়.রেড স্কায়ারের রাষ্ট্র প্রধানদের জন্য সংরক্ষিত আসনে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ এবং ২০ টি’র ও অধিক দেশের রাষ্ট্রপ্রধান.একই সাথে এই কুঁজকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয় রাশিয়ার বিভিন্ন শহরে .