রাশিয়ার জাতীয় ন্যানোটেকনলজি পরিকাঠামোতে এক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ঘটেছে, রাশিয়ার রীবিনস্ক শহরে এই প্রথম অনেক গুলি খুবই পাতলা আবরণ দিয়ে ঢাকা শক্ত যৌগ ধাতু দিয়ে তৈরী যন্ত্রপাতি তৈরী করা শুরু হয়েছে. রীবিনস্ক শহরের কারখানায় তৈরী যন্ত্র বিমানের মোটর নির্মাণে, রকেট ও মহাকাশ প্রযুক্তিতে ও অন্যান্য যন্ত্রাংশ তৈরীর কাজে লাগবে.

    রাশিয়ার কুরচাতভ বৈজ্ঞানিক কেন্দ্রের বিশেষজ্ঞরা এই অতি পাতলা আবরণ দিয়ে ধাতব অংশ ঢাকার পরীক্ষামূলক যন্ত্র "ক্রেমেন" (চকমকি পাথর) নাম দিয়ে তৈরী করেছেন. রাশিয়ার রসন্যানো কর্পোরেশনের সাহায্যে এই যন্ত্রকে শিল্পোত্পাদনের উপযুক্ত করে ধাতব যন্ত্র উত্পাদক কোম্পানী কে এই যন্ত্র ব্যবহারের লাইসেন্স বিক্রী করা হয়েছে. সেই ভাবে এই প্রযুক্তিকে বাণিজ্যিক রূপ দেওয়া হয়েছে. কুরচাতভ ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর মিখাইল কভালচুক এই প্রসঙ্গে বলেছেন:

    "বর্তমানে রসন্যানো অনেকগুলি সুদূর প্রয়াসী প্রকল্প বাজারে আনছে, তার মধ্যে রয়েছে সৌর শক্তি বিষয়ে, এলইডি স্ক্রীণ, বিমান নির্মাণের জন্য কার্বন যৌগ ইত্যাদি. কুরচাতভ ইনস্টিটিউটে আমরা সব কিছুই করে থাকি, আমাদের কাছে হাইড্রোজেন জ্বালানী, সুক্ষ মেমব্রেন এই সমস্তই ন্যানোটেকনলজি. আমাদের প্লাজমা প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট আছে, যেখানে আয়ন ব্যবহার করে অতি ক্ষুদ্র অংশ জোড়া হয়, যা অর্ধ পরিবাহী সার্কিটে ব্যবহার করা হয়. কুরচাতভ ইনস্টিটিউটের পরবর্তী প্রকল্প গুলির মধ্যে টারবাইনের পাখার কাজের আয়ু বৃদ্ধি করার প্রযুক্তি তৈরী করা রয়েছে, যা বিমান ও জাহাজ নির্মাণে কাজে লাগবে. সেন্ট পিটার্সবার্গের প্রমেথেই ইনস্টিটিউটের সঙ্গে আমরা পাইপের জন্য, পারমানবিক রিয়্যাক্টরের জন্য নতুন ধরনের যৌগ তৈরী করছি, যা এই সব যন্ত্রের আয়ু একশ বছর অবধি বাড়িয়ে দেবে".

    বিশেষজ্ঞদের কথা মতো বিশ্বে ন্যানো প্রযুক্তি সম্ভারের বাজার বহু হাজার কোটি ডলারের, বর্তমানে রাশিয়া যদি ন্যানো প্রযুক্তির উন্নতির পরিমাপে দেখা হয়, তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের সঙ্গে একই রকমের সমতলে রয়েছে এবং খুবই সম্ভাবনা আছে নেতৃত্বের স্থানে পৌঁছনোর. এই প্রসঙ্গে মিখাইল কভালচুক বলেছেন:

    "ন্যানো প্রযুক্তির উন্নতি করতে হলে উচিত হবে বিভিন্ন দিকে বহু প্রসারিত বৈজ্ঞানিক দিকের উন্নতি, আমরা নানা দিকে বিজ্ঞানের কাঠামোকে বহাল রেখেছি. তাই বর্তমানের ন্যানো প্রযুক্তির বাজারে আমরা বাস্তবে কিছু কাজ করতে পারছি".

    রাশিয়ার বেশ কিছু কোম্পানীর তৈরী ন্যানো পাউডার, ন্যানো মেমব্রেন বিশ্বের বাজারে চাহিদা তৈরী করতে পেরেছে, এই গুলি আজকাল ঔষধি তৈরীতে, সামাজিক ক্ষেত্রে জল পরিষ্কারে কাজে লাগানো হয়. আধুনিক প্রজন্মের আলোক উত্স তৈরীর জন্য এলইডি চিপ, এলইডি ল্যাম্প ইত্যাদি বিশ্বের সেরা প্রযুক্তির সঙ্গে টক্কর দেওয়া মত করে তৈরী করা হচ্ছে. রাশিয়ার এই বাজারে প্রথমে অংশ হবে মাত্র এক শতাংশ, কিন্তু এটা সবে শুরু. পরবর্তী প্রযুক্তির মধ্যে থাকছে সৌর ব্যাটারী তে ব্যবহার যোগ্য পলি গ্রাফাইট যৌগ ও আরও অনেক কিছু…