ফ্যাসীবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে মহান বিজয়ের ৬৫ তম জয়ন্তী উত্সবের প্রাক্কালে রাশিয়া এক সামাজিক কর্মসূচী শুরু করেছে, নাম "পবিত্র গিওর্গি রিবন". এর মোটো – "আমি মনে রেখেছি! আমি গর্বিত"!

    ছাত্র ও স্বেচ্ছাসেবক দের দল মস্কোর কেন্দ্রের একটি খুবই জনবহুল প্রধান সড়কে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া মানুষ ও গাড়ী চালকদের কালো ও কমলা রঙের রিবন দিচ্ছে. অনেকে এই সব অল্প বয়সী ছেলেমেয়েদের সামনে দাঁড়িয়ে পড়ে আরও কয়েকটা রিবন চাইছেন, নিজেদের বন্ধু এবং চেনা লোকেদের জন্য…

    জনগণের এই কর্মসূচী আজ চলছে বিগত ছয় বছর ধরে এবং তা এক ট্র্যাডিশনে পরিনত হয়েছে. বসন্ত কাল, মে মাস ও বিজয় দিবস রাশিয়ার বহু লক্ষ মানুষের এই কালো কমলা রঙের রিবনের সাথে জড়িয়ে গিয়েছে. সৈন্যদের প্রতাপ ও বীরত্বের প্রতীক হল এই রিবন. রাশিয়ার বিপ্লবের আগে এই রিবন সৈন্য দের সবচেয়ে বড় পুরস্কার "পবিত্র গিওর্গি ক্রস" এর সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির জন্য লাগানো হত. মহান পিতৃভূমির রক্ষার যুদ্ধের সময়ে এটা ব্যবহার করা হয়েছিল "মহিমা পুরস্কার" তৈরী করার জন্য. স্বেচ্ছা সেবিকা আলিওনা পেত্রোভা বলেছে:

"এই কর্মসূচীর অংশীদার হওয়ার জন্য এই রিবন শুধু নিজের পোষাকের কোথাও লাগালেই চলে অথবা গাড়ীতে লাগিয়ে নিলেও হয়. এই রিবন আমাদের মহান বিজয়ের স্মৃতির প্রতীক, কালো-কমলা রঙ – বারুদ ও আগুনের রঙ. এই রিবন আমরা ২২ শে এপ্রিল থেকে ১২ই মে পর্যন্ত বিনামূল্যে বিতরণ করে থাকে. আমি মনে করি আমাদের সবারই মনে রাখা উচিত, আমাদের জন্য আমাদের দাদু- ঠাকুর্দারা কি করেছেন, আজ যে আমরা পড়ছি, কাজ করছি, এই যে বিশ্বে আছি, সেই সব কিছুর জন্যই আমরা শুধু ওঁদের কাছেই ঋণী. ইচ্ছে হয় এই স্মৃতিকে সমর্থন করার জন্য নিজে কিছু একটা করতে, তাই আমি এখানে".

এই কর্মসূচী সাংবাদিক ও ছাত্ররা ২০০৫ সালে ভেবে বার করেছিল, এই কয়েক বছরে প্রায় পাঁচ কোটি রিবনের টুকরো বিতরণ করা সম্ভব হয়েছে. তার ওপর এই কর্মসূচীর ভৌগলিক সীমানা ক্রমাগত বেড়েই চলেছে, গিওর্গি রিবন এখন আর শুধু রাশিয়ার নানা শহরেই বিলি করা হচ্ছে না, এখন তা বিলি করা হচ্ছে স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহের দেশ গুলিতে, ইউরোপে, এশিয়াতে, আমেরিকাতে. রাশিয়ার আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা "রিয়া নোভস্তি"র উপ প্রধান সম্পাদক সের্গেই ভীখুখোলেভ বলেছেন:

"বিদেশের নানা দেশে, শুধু আমাদের স্বজাতির লোকেদের মধ্যেই নয়, এমনকি বিদেশীদের মধ্যেও যাঁরা ১৯৪৫ সালের মহান বিজয় সম্বন্ধে জানেন, তাঁদের মধ্যেও এই পবিত্র গিওর্গি রিবন বিলি করার কর্মসূচী প্রচুর শ্রদ্ধা কুড়িয়েছে ও প্রসারিত হয়ে চলেছে, প্রথমতঃ হিটলার বিরোধী জোটের দেশ গুলিতে – ফ্রান্সে, গ্রেট ব্রিটেনে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এটা দেখা গিয়েছে. এই বছরে আমরা ঠিক করেছি সাংহাই ও মস্কোর মধ্যে এক ভিডিও কনফারেন্স আয়োজন করার, সেখানে চীন ও রাশিয়ার ভেটেরানেরা অংশ নেবেন. এই সাক্ষাত্কারে আমরা ঠিক করেছি পবিত্র গিওর্গি রিবন বিলি করার, ভিয়েতনামের রুশ রাজদূতাবাসের কাছ থেকে আমাদের কাছে অনুরোধ এসেছে, কিছু রিবন পাঠানোর. এমন কি এই দেশেও লোকে গিওর্গি রিবনের কথা জানে, এটা আশ্চর্য হওয়ার মতো বিষয়. আমাদের খুব করে অনুরোধ করা হয়েছে কিছু রিবন পাঠিয়ে দিতে, যাতে এই মহান বিজয়ের ৬৫ বছর উপলক্ষে উত্সবের দিনগুলিতে স্থানীয় জনতার মধ্যে তা বিতরণ করা সম্ভব হয়".

মস্কোতে এই দিন গুলিতে প্রায় ষাট লক্ষ রিবন বিলি করার পরিকল্পনা রয়েছে. আর এই দিন গুলিতে ৯ই মে রেড স্কোয়ারে বিজয় উত্সবে যারা প্যারেডে অংশ নেবেন তাদের সকলের পোষাকে এই রিবন আঁটা থাকবে, তা সে সামরিক বাহিনীর সদ্য ভর্তি হওয়া ক্যাডেট বা ভেটেরান বা রাষ্ট্রপতি অথবা ভিন্ন দেশের প্রশাসনের প্রতিনিধি দলের নেতা যেই হোন না কেন.

<sound>