রাশিয়া ২০১০ সালে শস্যের রপ্তানি কিছুটা বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে, ২ কোটি ২০ লক্ষ থেকে ২ কোটি ২৫ লক্ষ টন অবধি, জানিয়েছেন প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রী ভিক্তর জুবকোভ রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভের সাথে সাক্ষাতে. তিনি সঠিক করে বলেন যে, বিগত কয়েক বছরে রাশিয়ায় শস্যের ফলন প্রায় ১০ কোটি টনের মতো ছিল, আর শস্যের আভ্যন্তরীন ব্যবহারের মান ৮ কোটি টনে বজায় রয়েছে. জুবকোভ বলেন যে, রাশিয়া শস্যের রপ্তানি বিকাশ করতে চায় দূরপ্রাচ্যের দিকে. তাঁর কথায়, চীন, জাপান ও কোরিয়ায় শস্যের প্রথম সরবরাহ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে. মেদভেদেভ নিজের তরফ থেকে প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন শস্য সংরক্ষণের বিদেশী প্রয়োগনীতি বিশ্লেষণের, যেখানে ব্যবহুল শস্য এলিভেটরে তা রাখা হয় না, রাখা হয় নতুন নতুন ব্যবস্থা ব্যবহার করে- মিনি গুদামে, যা নির্মাণ করা হয় শস্য সংগ্রহের জায়গাতেই. বীজ-বপন শুরুর খতায় এসে জুবকোভ রিপোর্ট দেন যে, এ বছরে রাশিয়ায় চাষ করা হবে প্রায় ৪ কোটি ৮০ লক্ষ হেক্টর জমিতে. তিনি উল্লেখ করেন যে, এ বছরে আবহাওয়ার পরিস্থিতির জন্য বীজ বপন শুরু করতে দেরি হয়েছে প্রায় দু সপ্তাহের মতো.