ইরানের প্রতি এবং তার পারমাণবিক সমস্যার প্রতি রাশিয়ার স্থিতি আগের মতোই রয়েছে. তার মর্ম হল,এ সমস্যা মীমাংসার রাজনৈতিক-কূটনৈতিক পথের অনুসন্ধানে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়া, রবিবার ইতার-তাস সংবাদ সংস্থাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবোভ. তবে, তাঁর কথায়, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের সিদ্ধান্ত পালনে অগ্রগতির অভাব, এ কথা বিবেচনায় রেখে যে, ইরান ২০ শতাংশের মান পর্যন্ত ইউরেনিয়াম পরিশোধনের কাজ শুরু করেছে ফোর্দু-তে, যার কথা বলা হয়েছে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির শেষ রিপোর্টে, এ সব উপাদান একত্রে সমাবেশ করলে ইরানের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা অবশ্যম্ভাবী হয়ে উঠবে. তবুও, আমরা মনে করছি যে, নিষেধাজ্ঞা- এ হল সবচেয়ে অপলপ্রসূ একটি উপায়, জোর দিয়ে বলেন রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী. তাঁর মতে, পারমাণবিক প্রকৌশল বিকাশের অধিকার আছে ইরানের. তবেসেই সঙ্গে নিজের পারমাণবিক কর্মসূচির শান্তিপূর্ণ চরিত্র সম্বন্ধে আস্থা পুনর্স্থাপন করতে হবে, আর তার জন্য রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ এবং আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির সিদ্ধান্ত পালন করতে হবে. সের্গেই রিয়াবোভ রবিবার তেহেরানে শেষ হওয়া নিরস্ত্রীকরণ ও পারমাণবিক অস্ত্র প্রসার নিরোধ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনের ইতিবাচক মূল্য়ায়ন করেন. এ সম্মেলনে তিনি রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব করেন.