"স্কি করে উত্তর মেরু"! আজ ১৬ই এপ্রিল রাশিয়ার স্কুলের ছেলেমেয়েদের তৃতীয় অভিযান শুরু হতে চলেছে. চারটি মেয়ে আর তিনটি ছেলে – যাদের বয়স ১৬ থেকে ১৮ – তারা চলেছে অভিজ্ঞ মেরু অভিযাত্রী মাতভেই শ্পারো ও বরিস স্মোলিন এর নেতৃত্বে. বরফের উপর ভাসমান মেরু স্টেশন বারনেও থেকে তারা ১০০ কিলোমিটার পথ স্কি করে যাবে উত্তর মেরু পর্যন্ত. পৃথিবীর মাথায় এই ছেলেমেয়েরা এক সপ্তাহ ধরে যাবে.

    উত্তর মেরু – আমাদের বিশ্বে এক ভীষণ আকর্ষণের জায়গা, যেখানে মাথার উপরে দিন রাতে সারাক্ষণ গ্রহ নক্ষত্রেরা পাক খাচ্ছে, আর ঠিক মাথার উপরে স্থির হয়ে আছে ধ্রুবতারা. কিন্তু এই খানেই, যেখানে চির বরফ আর মেরু ভল্লুকের রাজত্ব, সেখানেই মানুষ সব সময় যেতে চেয়েছে. আর যদি তোমার বয়স কম হয়, তাহলে আর্কটিকের এই ম্যারাথনে তুমি পাবে এক সুন্দর অনাবিষ্কৃত বিশ্বে পর্যটনের স্বাদ, যেখানে অ্যাডভেঞ্চার আছে, বিপদের ছোঁয়া প্রতি পদে আর আছে সহসা পরিবর্তনের আভাস. আর্কটিকের বহু বারের অভিযাত্রী দিমিত্রি শ্পারো এই কথা বলে যোগ করেছেন:

    "আমরা আমাদের অভিযানকে এক চরম জয় হিসাবে দেখছি না, আসলে এটা মানুষের খুবই স্বাভাবিক ইচ্ছা উত্তরের দিকে, আর্কটিকে পৌঁছনোর. কিন্তু একই সঙ্গে যথেষ্ট বিপজ্জনক উত্তর মেরুতে যাওয়া. এখানে খুব গুরুত্বপূর্ণ হল ছেলেমেয়েদের মধ্যে থেকে সঠিক লোক বাছাই করা – সকলে এই রকম পরীক্ষা সহ্য করতে পারে না".

    অভিজ্ঞ শ্পারো ঠিক কথাই বলেছেন – উত্তর কোন ভুলকে ক্ষমা করে না. অভিযানে শুধু তারাই যেতে পারবে, যারা সব থেকে বেশী করে তৈরী হয়েছে. তাই এই কারণে যাদের বাছা হয়েছে, তাদের জন্য পরীক্ষা ছিল খুবই কঠিন. তাদের সকলেরই স্কি স্পোর্টস ও বহু ধরনের শীতের খেলাধূলায় উঁচু মানের প্রশিক্ষণ নেওয়া আছে, তারা কারেলিয়া রাজ্যের বহু জায়গায় এক সাথে ট্রেনিং নিয়েছে ও রাশিয়ার ২০১০ সালের স্কি প্রতিযোগিতায় প্রাইজ পেয়েছে. কারণ এই অল্প বয়সী অভিযাত্রীরা  যে কোন রকমের পরীক্ষার জন্য তৈরী থাকতে বাধ্য, এমনকি সবচেয়ে চরম কোন পরীক্ষারও. যেমন, বরফ গলা হিম শীতল জলে অবগাহন অথবা বাধ্য হয়ে উপোস করা. কিন্তু ছেলেমেয়েরা কষ্টের ভয় একটুও পায় নি বরং তারা বেশ আত্ম বিশ্বাসী, যে সব ঠিক হবেই. আমরা এমন কি বন্ধুদের দুয়েকটা কাজও বেশী করতে তৈরী আছি, এই অভিযানের দুই যাত্রী মায়া ও ইলিয়া বলেছে:

    "আমার দুটো দায়িত্ব আছে, যা আমাকে করতে বলা হয়েছে. প্রথমটা বরফের তলায় একটা মুদ্রা পুঁতে ফেলে বলতে হবে যে, এটা আমাদের জায়গা. আর দ্বিতীয়টা হল, এক পা দিয়ে পূর্ব্ব গোলার্দ্ধ ও অন্য পা দিয়ে পশ্চিম গোলার্দ্ধে দাঁড়িয়ে একই সময়ে দুই জায়গায় থাকতে হবে".

    "আর আমাকে আমার প্রিয় বন্ধুরা একটা চিঠি খামে পুরে দিয়েছে, বলেছে একমাত্র উত্তর মেরুতে দাঁড়িয়ে খাম খুলে পড়তে. আমি যখন উত্তর মেরুতে পৌঁছবো, তখন দাঁড়িয়ে পড়ে আমার সমস্ত আত্মীয় বন্ধু আর যাদের ভালবাসি তাদের কথা মনে করবো".

    এই কিশোর কিশোরীদের জন্য পরীক্ষা খুব সহজ হবে না. তাদের যে কোন রকমের আবহাওয়াতেই দিনে ১০ কিলোমিটারেরও বেশী পথ চলতে হবে, তাও প্রতি বার পঞ্চাশ মিনিট চলার পরে দশ মিনিটের বিশ্রাম, এই ভাবে, আলাদা করে খাওয়ার জন্য কোন সময় দেওয়া যাবে না. নিজেদের যন্ত্রপাতি, জিনিসপত্র, খাবার সব কিছুই নিজেদের সঙ্গে করে নিয়ে যেতে হবে, যদিও তা থাকবে খুব হালকা স্লেজ এর উপরে, তবুও তার ওজন ২৫ কিলোর কম হবে না. এমন কি বরফ গলে যাওয়া ডোবাও সাঁতার দিয়ে পার হতে পারে, তার জন্য ওদের কাছে জল ঢোকে না এমন পোষাক আছে.

    মেরু অঞ্চলে দিক নির্ণয় করা বেশ কঠিন, কারণ ক্রমাগত বরফের পাহাড় জায়গা পাল্টাচ্ছে, আর উত্তর মেরুর থেকে সরে যাচ্ছে. তাই দলকে হয়ত বেশ ভাল রকমেরই দিক ভুল করতে হতে পারে উত্তর মেরুর বিন্দুতে পৌঁছনোর আগে. কল্পিত অক্ষরেখার মিলন স্থলে অভিযাত্রীরা ঠিক করেছে রাশিয়ার ও আগামী ২০১৪ সালে সোচী হতে যাওয়া শীত অলিম্পিকের পতাকা ছাড়াও এই বছরে রাশিয়াতে শিক্ষক দিবস উপলক্ষে ঘোষিত পতাকা রোপন করে আসবে.