রাশিয়া চীনকে ভূমিকম্পের ত্রাণে যে কোন রকমের সাহায্য করতে তৈরী আছে, এই ঘোষণা রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ চীনের চেয়ারম্যান হু জিন টাও এর সঙ্গে সাক্ষাত্কারের সময়ে করেছেন. ব্রাজিলের রাজধানীতে ব্রিক সম্মেলনে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত ও চীনের নেতারা মিলিত হয়েছিলেন.

    চীনের প্রাকৃতিক দুর্যোগের প্রভাব ব্রাজিলের সম্মেলনের উপরও পড়েছে. চীনের চেয়ারম্যান হু জিন টাও দেশে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, আর তাই আয়োজকদের সম্মেলনের কাঠামো বদল করতে হয়েছে, সবচেয়ে বেশী করে ঘনীভূত করা হয়েছে কাজের পরিসর. ফলে যে সম্মেলনের জন্য দুই দিন বরাদ্দ করা হয়েছিল, তা এক দিনেই শেষ হয়েছে. ব্রিক সংগঠন জানাই আছে যে একটি বেসরকারী সংগঠন, তবুও এখানে যে সমস্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে থাকে তা ধীরে হলেও খুবই নির্দিষ্ট হয়ে উঠছে. তাই ব্রাজিলে স্বাক্ষরিত হয়েছে রাশিয়ার বৈদেশিক অর্থনীতি ব্যাঙ্ক, চীনের উন্নয়ন ব্যাঙ্ক, ভারত ও ব্রাজিলের একই ধরনের ব্যাঙ্ক গুলির মধ্যে সহযোগিতার সম্বন্ধে বোঝাপড়ার চুক্তি.

    এই দলিলে চার দেশের বিনিয়োগ সংস্থা গুলি নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক ভাবে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, বিশেষত রপ্তানী ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে, পারস্পরিক উচ্চ প্রযুক্তি, বিদ্যুত শক্তি উত্পাদন ও সংরক্ষণ প্রকল্পে বিনিয়োগ ও অন্যান্য বহু ক্ষেত্রে. কিছু পরে রাশিয়ার বৈদেশিক অর্থনীতি ব্যাঙ্কের প্রধান ভ্লাদিমির দিমিত্রিয়েভ ব্যাখ্যা করেছেন যে, বর্তমানে ব্রাজিলের সাথে রাশিয়াতে অনুর্দ্ধ পঞ্চাশ আসন বিশিষ্ট বিমান নির্মাণের কারখানা স্থাপনের কথা হয়েছে. এ ছাড়া ভারত ও ব্রাজিলে বিদ্যত কেন্দ্র তৈরীর বিষয়ে বিনিয়োগের জন্য ব্যাঙ্ক গুলির মধ্যে সহযোগিতার কথা হয়েছে. রেডিও রাশিয়ার সাংবাদিক মিখাইল কুরাকিন বুয়েনাস আইরেসে থেকে জানিয়েছেন যে, এই শীর্ষ বৈঠকে বিনিয়োগের প্রশ্ন ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, তিনি বলেছেন:

         অনেক দিন ধরেই বিভিন্ন আলোচনায় সঞ্চয়ের মুদ্রা নিয়ে নানা রকমের কথা হয়েছে. ব্রিক দেশ গুলি এই বিষয়ে নিজেদের মধ্যে হিসাবের সময়ে জাতীয় মুদ্রা ব্যবহার বৃদ্ধি করতে চেয়েছে. কিন্তু আপাততঃ কারবার খুব একটা বেশী হচ্ছে না, যেমন, রাশিয়া ও ব্রাজিলের মধ্যে, তাই জাতীয় মুদ্রাতে কারবার করার খুব একটা প্রয়োজন দেখা যায় নি. দিমিত্রি মেদভেদেভ এই আলোচনার শেষে যেমন বলেছেন যে, এই বৈঠকে সন্ত্রাসবাদ, মাদক পাচার, বেআইনি অস্ত্র পাচার নিয়েও আলোচনা হয়েছে. এই বিষয় গুলি বিগত কিছু কাল ধরে সমস্ত রকমের সাক্ষাত্কার ও বৈঠকে হচ্ছে, আর সম্ভবতঃ এই সব আলোচনা এর পর শুধু সংখ্যার জায়গায় বেশী করে কার্যকরী আলোচনায় পরিণত হবে.

    রাশিয়ার নেতা আরও উল্লেখ করেছেন যে, আগে বহু পর্যবেক্ষকেরই সন্দেহ ছিল যে, ব্রিক একটি শীর্ষ বৈঠক করার জন্য সংস্থায় পরিণত হবে কি না, কিন্তু বর্তমানে এই সন্দেহের অবসান হয়েছে, আর একটা ব্যবস্থা তৈরী হয়েছে. ব্রিক সংগঠনের কাজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল অর্থনীতি এবং এটিই সবচেয়ে কঠিন প্রশ্ন. কিন্তু তা স্বত্ত্বেও এই ধরনের দেখা শোনার খুব দরকার আছে, বিশেষত জি ২০ সম্মেলনের আগে. ব্রিক চেষ্টা করবে জি ২০ শীর্ষ বৈঠকে একত্রিত ধারণা নিয়ে প্রস্তাব করতে.

    এই বৈঠকের শেষে নেওয়া সম্মিলিত দলিলে বলা হয়েছে যে, ব্রাজিল, রাশিয়া ও ভারত আগামী ২০১১ সালে চীনে এই সংগঠনের তৃতীয় বৈঠকের নিমন্ত্রণ সাদরে গ্রহণ করেছে. (sound)