বিনিয়োগ বিষয়ে সহযোগিতা ব্রিক সংস্থার দেশ গুলির (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত ও চীন) জন্য – অংশতঃ বাণিজ্যের ক্ষেত্রে জাতীয় মুদ্রা ব্যবহার করলে – চারটি দেশের পারস্পরিক কাজকর্মে সাহায্য করবে পারমানবিক শক্তি উত্পাদনে, বিমান নির্মাণে, অন্তরীক্ষ বিজ্ঞানে ও অন্যান্য ক্ষেত্রেও. এই রকম মত রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ তাঁর ১৫ – ১৬ এপ্রিল ব্রাজিলে অনুষ্ঠিতব্য সংস্থার শীর্ষ বৈঠক উপলক্ষে নিবেদিত "ব্রিক দেশগুলি: সম্মিলিত লক্ষ্য – সম্মিলিত কাজ" নামের প্রবন্ধে প্রকাশ করেছেন. চারটি দেশের সংবাদ মাধ্যমেই তা প্রকাশিত হয়েছে.

    ব্রিক শীর্ষ বৈঠক নবীন কিন্তু নিজের প্রথম পদক্ষেপ থেকেই বিশাল আন্তর্জাতিক প্রভাব জয় করতে পেরেছে. এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই, কারণ এই সংস্থার অন্তর্ভুক্ত দেশ গুলির মধ্যে বিশ্বের ২৬ ভাগ জায়গা এবং বিশ্ব অর্থনীতিতে বিগত কয়েক বছরের উন্নতিতে এই দেশ গুলির সর্বমোট যোগদান শতকরা ৫০ ভাগের ও বেশী.

    এই দলের মধ্যে উল্লেখ যোগ্য জায়গা নিয়েছে রাশিয়া. দিমিত্রি মেদভেদেভ যেমন উল্লেখ করেছেন যে, আমাদের দেশ, বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কটের ফলকে অতিক্রম করতে পেরে একই সাথে বিভিন্ন দিকে আধুনিকীকরণের পথে চলেছে. আরও বেশী করে বিনিয়োগ করা হয়েছে পরবর্তী কালে অন্তরীক্ষে বিকাশের জন্য, শক্তি ব্যবহারে সুফল প্রয়োগের জন্য, পারমানবিক শক্তির উন্নতি এবং অন্যান্য শক্তির উন্নতির জন্য, নতুন চিকিত্সা প্রযুক্তির উন্নতির জন্য. বেশী করে মনোযোগ দেওয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় প্রাকৃতিক সম্পদের পরিশোধনে, আর তা ছাড়া কৃষি উত্পাদনের উন্নতিতে. রাশিয়ার এই উপলব্ধি দিমিত্রি মেদভেদেভের মতে ব্রিক সংস্থার সহযোগী দেশগুলির জন্যও প্রয়োজনীয় হবে.

    নিজের পক্ষ থেকে রাশিয়া সাগ্রহে ও সহমর্মীতা নিয়ে এই জোটের অন্যান্য দেশ গুলির দ্রুত পরিবর্তন শীল উন্নতির দিকে লক্ষ্য রেখেছে. পারস্পরিক প্রতিযোগিতা মূলক ফায়দা চার দেশের জন্যই বহু ক্ষেত্রে লাভজনক হতে পারে, সহযোগিতা করার জন্য এক বিরল প্রেরণা হতে পারে. এর মধ্যে অনেক গুলিই বাস্তবায়িত হয়েছে. জাতীয় মুদ্রায় বাণিজ্যের পারস্পরিক চুক্তি করার সম্ভাবনা, যা সম্বন্ধে ব্রিক দেশ গুলিতে বর্তমানে ভাবা হচ্ছে, এই সংস্থার সদস্য দেশগুলির পারস্পরিক সহযোগিতা এক অন্য গুণমান সম্পন্ন স্তরে উন্নীত করবে বলে মনে করেছেন রাশিয়ার বিজ্ঞান একাডেমীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও অর্থনীতি ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ আন্দ্রেই ভলোদিন:

    আমি মনে করি, পারস্পরিক ভাবে জাতীয় মুদ্রা বিনিময়ের বন্দোবস্ত করার প্রশ্নটি – সঠিক ও তার ভবিষ্যত রয়েছে. এর ফলে ব্রিক দেশগুলি কিছুটা স্বাধীনতা পাবে বিশ্বের প্রধান বাণিজ্য কেন্দ্র গুলির থেকে এবং ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত ও চীনের মত চারটি বৃহত্ দেশকে নিরাপত্তা দিতে পারবে সেই সব সমস্যা থেকে, যা বিশ্বের অর্থনীতিতে আগামীতে সম্ভাব্য. জাতীয় মুদ্রাতে বাণিজ্য করার জন্য এই চারটি দেশের যা দরকার তা হল কয়েকটি শর্ত পূরণ করা, তার মধ্যে মুখ্য হল – সমস্ত সদস্য দেশেরই খুবই উঁচু মাপের আগ্রহ.

    পারস্পরিক সহযোগিতা করার আগ্রহ ব্রিক দেশগুলির বোঝা গিয়েছে বাস্তব তথ্য থেকে. অংশতঃ খাদ্য নিরাপত্তার জন্য ব্রিক দেশগুলির মধ্যে সম্মিলিত তথ্য কেন্দ্র খোলার সিদ্ধান্ত করা হয়েছে, কৃষি প্রযুক্তি বিনিময়ের কথা হয়েছে. বিদেশী মুদ্রার, শেয়ার ও কাঁচামালের বাজারে সম্ভাব্য সাট্টা খেলোয়াড়দের আক্রমণ সম্বন্ধে তথ্য বিনিময় চালু হয়েছে. এ ছাড়া চারটি দেশই সক্রিয় ভাবে রাষ্ট্রসংঘের সঙ্গে সহযোগিতা করছে. এর সব চেয়ে উজ্জ্বল উদাহরণ হল চার দেশের উদ্যোগে তাদের সম্মিলিত লেখনীতে রাষ্ট্রসংঘের সাধারন সম্মেলনে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, অন্তরীক্ষে কোন রকমেরই সমরাস্ত্র রাখতে দেওয়া হবে না.

    দিমিত্রি মেদভেদেভ বিশ্বাস করেন যে, ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত ও চীনের সহযোগিতার ভবিষ্যত বিশাল. যদিও তা এখন পথের শুরুতে, কিন্তু আলোচনার এক বিশ্বাসযোগ্য ভিত্তি ব্রিক কাঠামোর মধ্যে তৈরী করা সম্ভব হয়েছে – সকলেরই ভালর জন্য সদস্য দের মধ্যে পরীক্ষিত সহকর্মী মূলক পারস্পরিক ভাবে লাভজনক সম্পর্ক সুবিধা করে দিয়েছে এই পরিপ্রেক্ষ সংস্থার অবশ্যম্ভাবী সাফল্যের.

<sound>