পাকিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষ (কৌমি অ্যাসেম্বলি) সংবিধানে পরিবর্তন আনার পক্ষে একবাক্যে মত প্রকাশ করেছে, যা অনুযায়ী সমস্ত শাসন ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির হাতে সমাবেশ বাতিল করে. তাঁ কিছু কিছু অধিকার হস্তান্তর করা হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীকে এবং পার্লামেন্টকে. তাছাড়া, পার্লামেন্ট সদস্যরা সংখ্যাধিক্য ভোটে দেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রাদেশিক গভর্নরদের কেন্দ্রীয় ও আঞ্চলিক পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে. এখন এ সংশোধনে সিনেটের অনুমোদন প্রয়োজন. আগের রাষ্ট্রপতি পার্ভেজ মুশরফ ১৯৯৯ সালে সামরিক কুদেতার ফলে ক্ষমতাসীন হয়ে সংবিধান পরিবর্তন করেন এবং সমস্ত শাসন ক্ষমতা নিজের হাতে একত্রিত করেন. বর্তমান রাষ্ট্রপতি আসিফ আলি জারদারী এ সংশোধনের উদ্যোক্তা ছিলেন, যাতে বিরোধীপক্ষের স্থিতি দুর্বল করা যায় এবং দেশে স্থিতিশীলতা সুদৃঢ় করা যায়.