রাশিয়া রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদকে প্রস্তাব করছে সোমালির উপকূলের কাছে ধরা জলদস্যুদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা রুজু করার জন্য বিচার সংস্থা গঠনের. সম্বন্ধে সাংবাদিকদের বলেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন, নিরাপত্তা পরিষদে রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের দ্বারা তত্সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের খসড়া পেশ করা সম্বন্ধে মন্তব্য করে. তিনি মনে করিয়ে দেন যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ গত দেড় বছর ধরে সোমালির উপকূলের কাছে জলদস্যুতার সমস্যা নিয়ে কাজ করছে, তবে একমাত্র ইতিবাচক সূচক হল অসফল জলদস্যুতামূলক আক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি. সোমালি জলদস্যুতার সমস্যার সাথে যুঝে উঠতে পারছে না কারণ ১৯৯১ সাল থেকে একক রাষ্ট্র হিসেবে তার অস্তিত্ব নেই. আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, ২০০৯ সালে সোমালির জলদস্যুরা ২১৭ বার আক্রমণ চালিয়েছে এবং ৪৭টি জাহাজ দখল করেছে. ২০০৮ সালের ডিসেম্বর থেকে রাশিয়ার অংশগ্রহণে আন্তর্জাতিক জনসমাজ জলদস্যুদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে. এ ক্ষেত্রে একটি সমস্যা হল জলদস্যুদের সাস্তি দেওয়ার জন্য সুনির্দিষ্ট আদালতী ব্যবস্থা নেই. রাশিয়ার প্রতিনিধি মনে করেন, তাদের তাড়াতাড়ি আদালতে সমর্পণের সম্ভাবনা না থাকার জন্য তাদের ছেড়ে দেওয়া অগ্রহণীয়.