সৌদি আরবে তিনটি সন্ত্রাসবাদী শাখার সদস্যদের আটক করার কথা ঘোষণা করা হয়েছে, যারা দেশের বিভিন্ন স্ট্র্যাটেজিক প্রকল্পের উপর হানা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল. স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সরকারী প্রতিনিধি জেনারেল মানসুর আত-তুর্কী জানিয়েছেন যে, প্রথম চরমপন্থী দলে ছিল ১০১ জন. তাদের মধ্যে ৪৭ জন সৌদি, ৫১ জন ইয়েমেনের এবং সোমালি, এরিথ্রিয়া ও বাংলাদেশের একজন করে নাগরিক. আরও দুটি শাখার প্রত্যেকটিতে ছিল ৬ জন করে, এবং তারা পরস্পর থেকে স্বতন্ত্রভাবে কাজকর্ম চালাত. মন্ত্রণালয়ে উল্লেখ করা হচ্ছে যে, এই দলগুলি জড়িত ছিল "আল-কাইদার" সাথে এবং পরিচালিত হচ্ছিল ইয়েমেন থেকে. চরমপন্থীরা দেশে অনুপ্রবেশ করেছিল বেআইনীভাবে, হয়ত ভাড়া-খাটা শ্রমিক হিসেবে. আটকের সময় তাদের কাছ থেকে বজেয়াপ্ত করা হয় বহু পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাগুলি, জাল দলিলপত্র, ফোটো-প্রযুক্তি, কম্পিউটার ও যোগাযোগ সরঞ্জাম, বিপুল পরিমাণ অর্থ. চরমপন্থীরা পরিকল্পনা করছিল তৈল-পরিকাঠামোর প্রকল্পগুলিতে হানা দেওয়ার, বাসভবনে বিস্ফোরণ ঘটানোর এবং দেশের সৈন্যসম্বলিত বিন্যাসগুলির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদী ক্রিয়াকলাপ চালানোর.