আজ সার্বিয়ায় ন্যাটো জোটের বোমাবর্ষণের শিকারদের স্মৃতি তর্পণ করা হচ্ছে. ১১ বছর আগে প্রাক্তন যুগোস্লাভিয়ার ভূভাগে রকেট ও বোমাবর্ষণের ফলে আড়াই হাজারেরও বেশি শান্তিপূর্ণ অধিবাসী নিহত হয়. কোসোভো ও মেতোখিয়ার ভূভাগে বাস করা প্রায় ২ লক্ষ সার্বিয়ান এবং অন্যান্য অ-আলবেনীয় শরণার্থীর অবস্থায় পড়েছিল. ন্যাটো জোটের এ বোমাবর্ষণ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার সময় থেকে সার্বিয়া ও মনটেনেগ্রোর ভূভাগে সবচেয়ে ব্যাপক পরিসরের সামরিক অভিযান ছিল. ন্যাটো জোট এ সামরিক অভিযান চালিয়েছিল রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের তরফ থেকে কোনো অনুমোদন ছাড়াই. বেলগ্রেড এবং সার্বিয়ার অন্যান্য শহরে, যা ১৯৯৯ সালে ন্যাটো জোটের বোমা ও ক্রুইজ মিসাইলের লক্ষ্যবস্তু হয়েছিল, আজ ঠিক দুপুর বেলায় আগের বছরগুলির মতো সাইরেনের আওয়াজ শোনা যায়, যা জনসাধারণকে বিমান আক্রমণ সম্বন্ধে সতর্ক করে দেয়. সার্বিয়ার প্যাট্রিয়ার্ক ইরিনেই সেন্ট মার্ক গীর্জায় শহীদ দেশরক্ষক এবং সার্বিয়া ও মন্টেনেগ্রোয় নিহত শান্তিপূর্ণ নাগরিকদের শ্বাশ্বত শান্তির জন্য আরাধনা করেন.