রাশিয়ার প্যারা অলিম্পিক খেলোয়াড়েরা প্রমাণ করে দিলেন যে তারা সবার সেরা. কানাডার ভ্যান্কুভারে আয়োজিত এই বিশ্ব প্রতিযোগিতায় সব মিলিয়ে পাওয়া মেডেল সংখ্যায় রাশিয়া প্রথম স্থানে রয়েছে মোট ৩৮ টি মেডেল নিয়ে, তার মধ্যে ১২ টি সোনা, ১৬ টি রূপো ও ১০ টি ব্রোঞ্জ পদক. সোনার মেডেল পাওয়ার ব্যাপারে জার্মানী রাশিয়ার চেয়ে একটি মেডেল বেশী পেয়েছে, আর কানাডা আয়োজক দেশ রয়েছে তৃতীয় স্থানে.

    ভ্যান্কুভার যাওয়ার আগে রুশ প্যারা অলিম্পিক খেলোয়াড়দের সামনে মেডেল জয়ের কোন বড় লক্ষ্য না রেখে বলা হয়েছিল গতবারের ২০০৬ সালের তুরিনের মত এবারেও ভাল ফল করতে হবে. সেবারে রাশিয়া প্রথম বার সবার চেয়ে বেশী ৩৩ টি পদক পেয়েছিল, যার মধ্যে ১৩ টি সোনা ও রূপো এবং ৭ টি ব্রোঞ্জ পদক ছিল.

    এবারের প্রতিযোগিতায় সমস্ত গুণ গ্রাহীরা ও স্পোর্টস কমেন্টেটর নিজেদের অজান্তেই দেশের শীত অলিম্পিক দলের সঙ্গে প্যারা অলিম্পিক দলের একটা তুলনা করে ফেলেছেন. আর প্যারা অলিম্পিকের খেলোয়াড়দের প্রথম স্থান দিয়েছেন উদাহরণ হিসাবে. কারণ এমন একটা দিনও এবারে যায় নি, যখন রাশিয়ার প্রতিযোগিরা পদক পাওয়ার জন্য মঞ্চে ওঠেন নি, এমনকি বেশ কয়েকবার পুরো মঞ্চ আলো করেছেন রাশিয়ার দলের খেলোয়াড়েরা. এই যেমন রবিবার শেষের দিনও রাশিয়া ৮ টি মেডেল জিতেছে. যাদের চলাফেরার ক্ষমতা নেই তাদের এক কিলোমিটারের স্কি দৌড়ে রাশিয়ার খেলোয়াড়েরা প্রথম তিনটে জায়গাই নিয়েছে, তার মধ্যে আবার প্রথম স্থান নির্ণয় করতে হয়েছে ফোটো ফিনিশ দেখে, তার কারণ সের্গেই শিলভ যে ইরেক জারিপভকে হারিয়েছে, সে কয়েক সেকেন্ডের ভগ্নাংশ আগে শেষ করতে পেরেছে. দেখা গিয়েছে তাতে অবশ্য ইরেক জারিপভের মন খারাপ হয় নি কারণ উফা শহরের এই খেলোয়াড় এবারে একাই দারুণ ফল দেখিয়েছেন, তার ভাগা চারটে সোনা ও একটা রূপোর মেডেল. ইরেক জারিপভ বলেছেনঃ

    "অবশ্যই আমি দারুণ খুশী! সবাই খুশী, আমার ফলে সবাইকে খুশী দেখতে পেয়ে ভাল লাগছে, আমি তো বুঝতেই পারছি না কি করে চারটে সোনার মেডেল জিততে পারলাম? কিন্তু আমি সবার আগে ধন্যবাদ জানাই আমার ট্রেনার কে, তিনি আমার সঙ্গে একটানা গত চার বছর ধরে পরিশ্রম করেছেন, আমরা টানা চার বছর শুধু খেটেছি. রাশিয়ার কাছে আমি ঋণী, সবাইকে ধন্যবাদ জানাই, যারা আমাকে উত্সাহ দিয়েছেন. আমি ভীষণ খুশী, জানি না কি করা উচিত্, আমার তো আবেগ উপচে পড়ছে".

    আন্তর্জাতিক প্যারা অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্ট ফিলিপ ক্রেইভেন সমাপ্তি অনুষ্ঠানে রুশ খেলোয়াড়দের নিয়মিত ভাল ফলের জন্য প্রচুর শ্রমের উল্লেখ করে বলেছেন যে, আগামী ২০১৪ সালের রাশিয়াতে হতে যাওয়া সোচী অলিম্পিকে সকলেই এক দারুণ শুরু আশা করছেন. এই কথা বলে তিনি উপস্থিত কয়েক হাজার দর্শকের সামনে প্যারা অলিম্পিকের পতাকা সোচী শহরের মেয়রের হাতে সমর্পণ করেছেন.

    সোচী অলিম্পিকের আয়োজক পরিষদের প্রধান দিমিত্রি চেরনিশেঙ্কো বলেছেনঃ

    "আমরা সোচী অলিম্পিককে সর্ব্বাঙ্গ সুন্দর করার জন্য সমস্ত কিছুই করব, ভাল প্রতিযোগিতা কখনোই হতে পারে না, যদি না আমাদের খেলোয়াড়েরা পুরস্কার নিতে মঞ্চে ওঠেন, তাই যদি আমাদের খেলোয়াড়েরা পদক নিতে ওঠেন, তবে আমরাও নিজেদের দিক থেকে সব কিছুই করব, যাতে আয়োজন খুব ভাল হয়. আর এটাই সারা দেশকে একটা ইতিবাচক আবেগময় প্রকল্পের চার পাশে জোট বাঁধতে সাহায্য করবে".

    দশম প্যারা অলিম্পিক গেমসের শেষে আয়োজকেরা উল্লেখ করেছেন যে, প্রতি বছরের সঙ্গে খেলোয়াড়দের মান বাড়ছে, কিন্তু সব চেয়ে বড় কথা হল, প্রতিটি প্যারা অলিম্পিকের খেলোয়াড় নিজের সঙ্গে যুদ্ধে জয়ী হয়ে অসাধারন কৃতিত্ব দেখিয়েছেন. তাঁদের উজ্জ্বল বিজয় বহু লক্ষ প্রতিবন্ধী মানুষকে বুঝতে সাহায্য করেছে যে, মানুষের পক্ষে অনতিক্রম্য কোন লক্ষ্যই নেই.