রুশ ভাষার ঐতিহাসিক ভাগ্য ও বর্তমান নিয়ে মস্কোতে ২০ থেকে ২৩ মার্চ এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বিশেষজ্ঞরা আলোচনা করছেন. মস্কোর রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা বিভাগে আন্তর্জাতিক রুশ ভাষা বিদ দের সহায়তায় এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে. বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা বিভাগের ডীন প্রফেসর মারিনা রেমনিওভা "রেডিও রাশিয়া"কে বলেছেন, গতবারের বর্তমান সময়ে স্লাভনিক ভাষা ও সংস্কৃতি বিষয়ে সম্মেলনের মত এবারের সম্মেলনে সারা ইউরোপ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কিছু প্রতিনিধি দল এসেছেন.

এই সমাবেশে কি ধরনের সমস্যা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে?

"এখানে ভাষা সংক্রান্ত সব বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে, তাছাড়া নিকট ও দূর বিদেশে রুশ ভাষার কাজ নিয়ে আলোচনা হবে. একটি প্রবন্ধ এমন পড়া হবে যাতে ইউক্রেন ভাষার লোকেদের মধ্যে রুশ ভাষার প্রভাব নিয়ে আলোচনা থাকছে. এই খানে বেলোরাশিয়া, দ্নীপার নদীর উপকন্ঠে অঞ্চল, জার্মানী ও অন্যান্য দেশ নিয়েও আলোচনা হতে পারে. অর্থাত্ রুশ ভাষা ধীরে হলেও ইংরাজী ভাষার মতই করুণ ভাগ্য পেয়েছে, যেখানে ভাষা নিজের মত থাকছে না, হয়ে যাচ্ছে সেখানের মত, যেখানে এই ভাষায় কথা বলা হচ্ছে বা ব্যবহার করা হচ্ছে".

ভাষা বিদ দের জন্য রুশ ভাষার ইতিহাস ও বর্তমানের কি বিষয় সব চেয়ে বেশী উদ্বেগের?

"আমার মনে হয়, জাতিকে এক করার জন্য ও তার ভবিষ্যতের উন্নতির যেটা একমাত্র উপায় তা চোখের সামনে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে. ফরাসী লোকেরা বুঝতে পেরেছেন যে, এটা খুবই দরকারি, প্রসঙ্গতঃ স্লাভনিক লোকেরাও তা বুঝতে পেরেছে. আর তাই গত বছরে আমাকে বলা হয়েছিল স্লাভনিক ভাষা ও সংস্কৃতি নিয়ে সম্মেলনের আয়োজন করতে. আর আমি বুঝতে পরেছি তা কেন দরকার, কারণ বিশ্বায়নের ফলে প্রথমতঃ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে ছোট দেশের ছোট মাপের ভাষা. তারা বুঝতে পারছেন এর ফল কি হতে চলেছে. তাই এটা একেবারেই ভাষা বিজ্ঞানের সমস্যা. দেখুন, ইংরাজী ভাষা কতটা জায়গা এর মধ্যেই দখল করে ফেলেছে, টেলিভিশনে শুধু যদি দেখা হয়, তা হলে এটাকে কি বলতে হবে? রুশ ভাষাকে ধাক্কা দিয়ে বার করে দেওয়া, তার জাতীয় অবস্থান কেড়ে নেওয়া নয় কি".

বর্তমানে ভাষা বিভাগে কোন ধরনের বিশেষ বিষয় নিয়ে ছাত্র ছাত্রীরা বেশী পড়া শোনা করতে চায়? অল্প বয়সীদের কি বেশী ভাল লাগে?

"আশির দশকের তুলনায়, যখন সকলেই রোমান – জার্মান ভাষা পড়তে চাইত, বর্তমানে বেশীর ভাগই রুশ ভাষা ও সাহিত্য নিয়ে পড়া শোনা করতে চায়. গত কয়েক বছরে সব চেয়ে বেশী প্রতিযোগিতা হয়েছে রুশ ভাষা বিভাগে পড়তে সুযোগ পাওয়ার জন্য. সবচেয়ে বেশী গুণী ছেলেমেয়েরা রুশ ভাষা বিভাগে পড়তে আসছে. তাদের সঙ্গে কাজ করাও খুব আনন্দের বিষয়. যদিও অন্য বিভাগ গুলো ভালই চলছে বলা যেতে পারে. তার ওপরে আমরা বর্তমানে লাতভিয়া ও এস্তোনিয়ার ভাষা শেখার বন্দোবস্ত করেছি. সেখানেও লোক আসছে পড়াশোনা করতে. আমরা ফিনিশ ও উগোর ভাষা বিভাগ আবার করে শুরু করেছি. প্রসঙ্গতঃ গত কয়েক বছরের তুলনায় এখন পোর্তুগিজ ভাষা চর্চা করতে চাওয়া ছাত্রের সংখ্যা বাড়ছে. যখন থেকে পোর্তুগিজ ভাষা দক্ষিণ আমেরিকাতে প্রসারিত হয়েছে, তখন থেকেই লোকে বুঝেছে যে, এটা কোন ছোট পিরেন অঞ্চলের ভাষা নয়, এটা এক বিরাট দেশ ও অঞ্চলের, নানা মিলিত সংস্কৃতির ভাষাতে পরিণত হয়েছে, যার ঐতিহ্য বিরাট বড়. এ ছাড়া পোর্তুগিজ ভাষার নানা রূপ বদলও দেখতে পাওয়া যাচ্ছে".

আপনি এই সম্মেলনের থেকে কি সব চেয়ে বেশী আশা করছেন?

"আমি অপেক্ষা করছি, যাতে সবাই দেখা সাক্ষাত্ করে, নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে এবং সেই সব বানানো গণ্ডী যা নানা দেশের সরকার আরোপ করছে, যেমন প্রি বাল্টিক দেশ গুলিতে, সে গুলি মুছে যায়. আমরা সবাইকে তাদের ভাষা শিখতে সাহায্য করছি, আমাদের কাছে তাদের দেশের লোকেরা লেকচার পড়েন, আমরা তাদের সংস্কৃতি চর্চা করি. আমরা এই সব ভাষা পড়ার জন্য পাঠ্য বই লিখে থাকি, তাই আমি মনে করি এই ধরনের আয়োজনের মূল কথা হল, যাতে যারা যোগ দিয়েছেন, তারা সকলেই বুঝতে পারেন যে, আমাদের সকলের কাজ এক এবং কোন রাজনৈতিক কারণ দিয়ে আমাদেরকে আলাদা করা যাবে না".