ইরানের ইউরোনিয়াম সমৃদ্ধকরণ বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার সম্ভবনার বিষয়টি এখনও
শেষ হয়ে যায় নি,তবে নতুন রেজুলেশন প্রশ্নে আলোচনা কারার উপযুক্ত সময় এসেছে.এমনই মন্তব্য করলেন রাশিয়ার সহকারি পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই রিয়াকব.শুক্রবার তিনি ইরানের ইউরোনিয়াম সমৃদ্ধকরন বিষয়ে মস্কো-ওয়াশিংটনের দৃষ্টিভঙ্গি সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় এ বিবৃতি প্রদান করেন.
মতবিনিময় সভায় রিয়াকব উল্লেখ করে বলেন যে,নতুন রেজুলেশন বিষয়ে কাজ শুরু করার পূর্বে যে প্রশ্নবলী উতপত্তি হবে তা আলোটনা করাই হবে প্রথম কাজ.এই প্রশ্ন তাত্বীক নয়.মার্কিন কর্তৃপক্ষও এই নতুন রেজুলেশনে কাজ করার ইচ্ছা ব্যক্ত করেছে.তবে ছয় জাতির এক্ষেত্রে কী দৃষ্টিভঙ্গি তা একনও পরিষ্কার করে যানা যায় নি,তবে সব সংস্থাকেই নিজেদের মতামত প্রদান করতে হবে,বললেন রাশিয়ার সহকারি পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই রিয়াকব.

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেউ ল্যাভরোভ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের সাথে মস্কোতে অনুষ্ঠিত হওয়া ঐ বৈঠকে উল্লেখ করেন যে ইরানের ইউরিনিয়াম সমৃদ্ধ প্রশ্নে রাশিয়া আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি সংস্থার বিধিনিষেধের মধ্য অবস্থান করছে.
ল্যাভরোভ বলেন,আমরা আশা করছি যে ইরান আন্তর্জাতিক পারমানবিক সংস্থা ও জাতিসংঘ নিরপত্তা পরিষদ কর্তৃক দেওয়া বিধিনিষেধ মেনেই তাদের পারমানবিক চুল্লি প্রতিষ্ঠার কাজ করা উচিত.আমরা ইরানের সাথে কাজ করে যাচ্ছি যার ফলে আশা করা হচ্ছে যে ইরানের কাজ থেকে কার্যকারী কোন সিদ্ধান্ত আসবে.

তবে ইরানের ইউরিনিয়াম সমৃদ্ধকরন বিষয়ে ছয়জাতির পক্ষ থেকে(রাশিয়া,চীন,যুক্তরাষ্ট্র,ফ্রান্স,জার্মানী ও যুক্তরাজ্য) এখনও যৌথ কোন ঘোষনা আসে নি.