রাশিয়ার প্যারা অলিম্পিক দলের খেলোয়াড়েরা ভ্যান্কুভারের প্রতিযোগিতায় দারুণ ফল করেই চলেছেন. দলের ভান্ডারে জমা হয়েছে এর মধ্যেই ২৩ টি মেডেল, তার মধ্যে ৮ টি সোনা. আর প্রায়ই ফিনিশে এসে প্রথম, দ্বিতীয় ইত্যাদি স্থানের প্রতিযোগিতা হচ্ছে শুধু একটি দেশের খেলোয়াড়দের মধ্যেই  - রাশিয়ার. বিয়াথলনে, যেখানে যারা দাঁড়াতে চলতে পারেন না, তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় পুরো প্রাইজ পাওয়ার মঞ্চে ছিলেন শুধু রাশিয়ার লোকেরাই.

    অন্যান্য দেশের খেলোয়াড়েরা প্যারা অলিম্পিক গেমসে রাশিয়ার খেলোয়াড়দের সঙ্গে স্কি কিংবা বিয়াথলনে কিছু করে উঠতেই পারছেন না. একটা দিনও এমন যায় নি যখন রাশিয়ার দলের কেউ সোনার মেডেল পায় নি. অন্যান্য মেডেলের কথা তো ছেড়েই দিলাম. কানাডায় এই অলিম্পিকের হিরো হয়েছেন রাশিয়ার ইরেক জারিপভ, তাঁর সঞ্চয়ে এর মধ্যেই তিনটি স্বর্ণ পদক.

    যা রাশিয়ার প্রতিবন্ধী খেলোয়াড়েরা করে দেখাচ্ছেন, তাকে সত্যিকারের বিজয় বলা যেতে পারে, শুধু এর জন্য প্রশংসা আর সম্মান দেখানোই যেতে পারে. অলিম্পিক কমিটির জনসংযোগ বিভাগের কর্তা গেন্নাদি শ্ভেত্স বলেছেনঃ

    "এটা খুব সুন্দর ব্যাপার, ওরা সত্যিকারের নায়ক, প্যারা অলিম্পিকে প্রতিযোগিতার মান প্রতি বছর বেড়েই চলেছে, যেমন অলিম্পিকে, তেমনই প্যারা অলিম্পিকে প্রতিযোগিতা হচ্ছে. কিন্তু সবচেয়ে বড় কথা হল, ওদের জয়ের চেষ্টা, মানসিক শক্তি, আমাদের মত সাধারন লোকেদের বাধ্য করে ওদের প্রতি বেশী মনোযোগ দিতে, সব রকম ভাবে সাহায্য করতে. ভাল যে, প্যারা অলিম্পিকের খেলোয়াড় দের দেখেই এখন তাদের মত যাদের শারীরিক ত্রুটি আছে, তাদের ভালর জন্য নানা ধরনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে. অনেক কিছুই করা হয়েছে, বহু দেশে এমনকি কানাডাতে তাদের জন্য লিফ্ট, বিশেষ ধরনের সিঁড়ি তৈরী করা হয়েছে. সভ্য দেশে সমস্ত মানুষকেই তাদের সমস্যা থেকে উদ্ধারের জন্য যথা সম্ভব চেষ্টা করা হয়ে থাকে".

    ২১ শে মার্চ ভ্যান্কুভারে প্যারা অলিম্পিক গেমস শেষ হবে. রাশিয়ার খেলোয়াড়েরা আরো সোনা, রূপো, ব্রোঞ্জ পদক জিতবে, কিন্তু আজই বলা যেতে পারে যে, খেলোয়াড়েরা খুব ভাল করেছেন এবং তারা সমস্ত রকমের প্রশংসা ও পুরস্কারের জন্য উপযুক্ত. শ্ভেত্স যেমন বলেছেন যে, খেলোয়াড়েরা অর্থ পুরস্কার হিসাবে খুব খারাপ লাভ করবেন না, তাদের পুরস্কারের অর্থের পরিমান এখন অলিম্পিকে যারা জয়ী হয়েছেন তাদের সমানই করে দেওয়া হয়েছে.