ভৌগলিক সমাজের প্রথম প্রসারিত অছি সংসদের সম্মেলনে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছেন যে, এই সমাজ দেশের উন্নতির জন্যে কাজ করবে এবং দেশের প্রাকৃতিক সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার করার কাজে সাহায্য করবে. তিনি অনুসন্ধানের কাজের জন্য মোট পাঁচ কোটি রুবল মূল্যের এগারোটি গ্র্যান্ট প্রদান করেছেন.

    কয়েক মাস আগে নভেম্বর ২০০৯ এই রাশিয়ার ভৌগলিক সমাজের পুনর্জন্মের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল এবং প্রধান কাজ হিসাবে স্থির করা হয়েছিল ১৬৫ বছরের পুরনো এই সমাজের ঐতিহ্যকে আবার নতুন করে বহাল করা. প্রধানমন্ত্রী বলেছেনঃ

    "আমাদের লক্ষ্য হল – রাশিয়ার ভৌগলিক সমাজকে দেশের ও বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলিতে যেমন, ভৌগলিক জ্ঞান, প্রাকৃতিক সম্পদের জ্ঞান, দেশের মানবিক ও সাংস্কৃতিক সম্পদের ঐতিহ্য সম্বন্ধে ওয়াকিবহাল হওয়া নিয়ে অনুসন্ধানের ও আলোচনার জন্য ব্যবহার করা. দেশের উপকারে এই সব বিষয়েই অনুসন্ধান ও আলোচনার জন্য ভৌগলিক সমাজকে বুদ্ধিজীবীদের কার্যকরী ব্যবস্থা তৈরীর কেন্দ্র হিসাবে ব্যবহার করা উচিত্. মনে করি যে, রাশিয়ার ভৌগলিক সমাজ আজকের দিনের বহু কাজের সমাধান করতে পারে, যেমন, দেশের অঞ্চলের বহুমুখী উন্নতি, পরিকাঠামোর উন্নয়ন, প্রাকৃতিক সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার, পরিবেশ সংরক্ষণ সম্বন্ধে জ্ঞানের বিকাশ".

    ১৮৪৫ সালে রাশিয়ার সম্রাট নিকোলাই এর এক বিশেষ নির্দেশে এই সমাজ সৃষ্টি হয়েছিল, প্রধান কর্মসূচী ছিল দেশকে জানা এবং দেশের মানুষকে চেনা. কাজে অংশ নিয়েছিলেন দেশের সেরা বুদ্ধিজীবি ও বিজ্ঞানীরা, সম্রাটের পরিজনরা এর কাজে সাহায্য করেছিলেন নানা ভাবে, দেশের সবচেয়ে ধনী ও বিখ্যাত পরিবারের সদস্যরা, দেশের নেতারা, শিল্প পতি ও ব্যবসায়ীরা সবসময়েই এর সঙ্গে ছিলেন. তাই ১৯ শতকের সবচেয়ে মূল্যবান আবিষ্কার, সাইবেরিয়ার খুবই অগম্য স্থানে পৌঁছনো, সুদূর প্রাচ্যে ও মধ্য প্রাচ্যে স্থল পথে যাওয়ার পথ আবিষ্কার ও বিশ্বের বিভিন্ন মহা সমুদ্রে অভিযান সম্ভবপর হয়েছিল.

    আজ রাশিয়ার ভৌগলিক সমাজের ১২৭ টি বিভিন্ন দপ্তর রাশিয়াতে ও বিশ্বের অন্যান্য দেশে রয়েছে. অছি পর্ষদের সভাপতি রাশিয়ার বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রী সের্গেই শইগু বলেছেনঃ

    "রাশিয়ার বিজ্ঞানী ও ভ্রমণ কারী দের বিভিন্ন ডায়েরী উদ্ধার করা হচ্ছে, সেন্ট পিটার্সবার্গের ঐতিহাসিক প্রাসাদ সারানো হচ্ছে, প্রাকৃতিক স্মরণীয় জায়গা অনুসন্ধান ও অভিযান চালানো হচ্ছে. সমাজ আন্তর্জাতিক নানা প্রকল্পে সক্রিয়ভাবে অংশ নিচ্ছে, বিশেষজ্ঞ পরিষদ তৈরী করা হয়েছে, যেখানে রাশিয়ার অনেক বড় বিজ্ঞানীরা রয়েছেন".

    সের্গেই শইগু বলেছেন, বেশ অনেক প্রকল্প থেকে সেই কটি বেছে নেওয়া হয়েছে যা আজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তাদের অর্থ সাহায্যের জন্য গ্র্যান্ট দেওয়া হল. এর মধ্যে শ্বেত ভল্লুকের সংরক্ষণ, বৈকাল হ্রদের পরিবেশ সংরক্ষণ, রাশিয়ার ভৌগলিক মানচিত্র নির্ণয় ইত্যাদি রয়েছে. "অলিম্পিক সোচী শহরের স্থিতি শীল উন্নতির জন্য ছাত্র সমাজ" নামের প্রকল্পের বাস্তবায়ন এবং আন্তর্জাতিক ভূগোল অলিম্পিক এর প্রকল্পের জন্যও অর্থ প্রদান করা হয়েছে. প্রথম আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠান ভৌগলিক সমাজ আয়োজন করবে আর্কটিক অঞ্চল – আলোচনার ক্ষেত্র নাম দিয়ে. এই অঞ্চলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন নিয়ে আলোচনার জন্য. অংশতঃ সেই কঠিনতম প্রশ্ন নিয়ে, যেখানে আর্কটিক শেল্ফের রাশিয়ার ভাগ নিয়ে বিতর্ক হবে.