দেশে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আতঙ্ক এবং জর্জ্জিয়ার বিরোধী পক্ষকে বর্তমানের প্রশাসনের প্রতি ও দেশের প্রতি অনুরক্ত এবং কলঙ্কিত হিসাবে "প্রচার করার উদ্দেশ্য" নিয়ে মিখাইল সাকাশভিলির আদেশে রাশিয়ার জর্জ্জিয়া আক্রমণের মিথ্যা টেলিভিশন সংবাদ ভাবা ও কার্যকরী করা হয়েছিল. এই ঘোষণা করেছেন "গণতান্ত্রিক আন্দোলন" দলের বিরোধী পক্ষের নেত্রী নিনো বুরজানাদজে বোস্টন শহরের খ্রীস্টীয়ান সায়েন্স মনিটর কাগজকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে. তিনি উল্লেখ করেছেন যে, "জর্জ্জিয়াতে যে কেউ জানে যে, "ইমেদি" টেলিভিশন কোম্পানীর মালিক রাষ্ট্রপতির আদেশ পালন করে থাকে". এর আগে রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র আন্দ্রেই নেস্তেরেঙ্কো ঘোষণা করেছিলেন যে, "ইমেদি" চ্যানেলের মিথ্যা প্রচার ককেশাস অঞ্চলে জটিলতা বাড়িয়েছে এবং এখানের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার ক্ষতি করেছে. মস্কো মনে করে আন্তর্জাতিক সমাজ এই নোংরা ঘটনার উপযুক্ত সমালোচনা করবে. একই সঙ্গে জর্জ্জিয়ার জাতীয় টেলিকমিউনিকেশন কমিশন "ইমেদি" কোম্পানীর বিরুদ্ধে কোনো নিষেধাজ্ঞা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় নি. শুধু টেলিভিশনের লোকেদের এই ঘটনার জন্য দেশের নাগরিক দের কাছে ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে.