রাশিয়া ও ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ ও ভিক্তর ইয়ানুকোভিচের সাক্ষাতের উদ্দেশ্য হল দু দেশের সম্পর্কের সুপ্রতিবেশীসুলভ চরিত্র পুনর্স্থাপন করা. এ সম্পর্কে বলেছেন ক্রেমলিনের এক উচ্চপদস্থ উত্স, আজ ইউক্রেনের নব-নির্বাচিত রাষ্ট্রপতির রাশিয়া সফর উপলক্ষে. এটি হবে দীর্ঘ বিরতির পর দু রাষ্ট্রের নেতাদের প্রথম সাক্ষাত এবং এর একটি কর্তব্য হল- রাজনৈতিক সংলাপ প্রখর করা. দু দেশের মাঝে বাণিজ্যিক-অর্থনৈতিক সম্পর্কের বিপুল ক্ষমতা বিদ্যমান আছে. এ সূচক অনুযায়ী ইউক্রেন রাশিয়ার ষষ্ঠ শরিক. আজ ক্রেমলিনে রাশিয়া ও ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ ও ভিক্তর ইয়ানুকোভিচের মাঝে আলাপ-আলোচনায় মুখ্য স্থান অধিকার করবে- গ্যাস সংক্রান্ত প্রশ্ন. রাশিয়ার পক্ষ জোর দিচ্ছে এ ক্ষেত্রে বিদ্যমান চুক্তিগুলি একনিষ্ঠভাবে পালন করার প্রতি, সেই সঙ্গে ইউরোপীয় পরিভোগীদের রাশিয়ার প্রাকৃতিক গ্যাসের নিরবিচ্ছিন্ন সরবরাহ সুনিশ্চিত করা. আশা করা হচ্ছে যে, দু দেশের নেতারা তাছাড়া ইউক্রেনে রাশিয়ার কৃষ্ণসাগরীয় নৌবাহিনীর অবস্থানের প্রশ্নও আলোচনা করবেন. এ সাক্ষাতে বিপুল মনোযোগ দেওয়ার পরিকল্পনা আছে মিলিতভাবে বিজয়ের ৬৫তম বার্ষিকী উদযাপনের প্রস্তুতির প্রতি, ইতিহাস বিকৃতির চেষ্টার বিরোধিতার প্রতি এবং ভাষার ক্ষেত্রে সহযোগিতা সুদৃঢ়করণের প্রতি.