রাশিয়া ও ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতিরা গোটা একসারি আন্তর্জাতিক সমস্যার মীমাংসা সম্পর্কে দৃষ্টিভঙ্গীর ব্যাপক মিল এবং উচ্চ মাত্রার আস্থার কথা ঘোষণা করেছেন. এ সম্পর্কে দু দেশের নেতারা বলেছেন প্যারিসে সাক্ষাতের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে. বিশেষ করে নিকোল্যা সার্কোজি জানিয়েছেন যে, পয়লা মার্চ থেকে রাশিয়াকে চারটি মিস্ত্রাল মার্কা হেলিকপ্টারবাহী জাহাজ বিক্রি নিয়ে আলাপ-আলোচনা শুরু হয়েছে. তাঁর কথায়, রাশিয়ার জন্য এগুলি তৈরি করা হবে সামরিক সরঞ্জাম ছাড়াই. সার্কোজি প্রস্তাব করেন + সূত্র. রাশিয়াকে "মিস্ত্রাল" বিক্রিকে তিনি যুক্ত করেন দু রাষ্ট্রের মাঝে পারস্পরিক আস্থার প্রশ্নের সাথে. দমিত্রি মেদভেদেভ জোর দিয়ে বলেন যে, মস্কো ও প্যারিসের মাঝে গড়ে উঠেছে স্ট্র্যাটেজিক, শরিকানার সম্পর্ক, এবং তাদের মাঝে কোনো মতাদর্শগত মতভেদ নেই. প্রধান প্রধান আন্তর্জাতিক সমস্যার মধ্যে রাশিয়ার রাষ্ট্রনেতা উল্লেখ করেন রণনৈতিক আক্রমণাত্মক অস্ত্রসজ্জা সংক্রান্ত নতুন চুক্তি নিয়ে রুশ-মার্কিন আলাপ-আলোচনার কথা. তাঁর কথায়, রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তা শেষ করার কাছাকাছি, এবং আশা প্রকাশ করেন যে, এ দলিল নিকট ভবিষ্যতে স্বাক্ষরিত হতে পারে. অন্যান্য আন্তর্জাতিক সমস্যার মধ্যে উল্লেখ করা হয় ইরানের পারমাণবিক সমস্যা এবং প্যালেস্টাইনী-ইস্রাইলী মীমাংসা. দমিত্রি মেদভেদেভ ইরানের পারমাণবিক সমস্যা নিয়ে আলাপ-আলোচনাকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতির অবনতি ঘটার কথা উল্লেখ করেন এবং শেষ ব্যবস্থা হিসেবে তেহেরানের বিরুদ্ধে বাধা-নিষেধ প্রবর্তনে রাশিয়ার প্রস্তুতির কথা জানান. তবে তাঁর কথায়, এসব বাধা-নিষেধ হওয়া উচিত সুচিন্তিত ও বুদ্ধিসঙ্গত এবং তা যেন বেসামরিক জনসাধারণের বিরুদ্ধে নির্দেশিত না হয়. দমিত্রি মেদভেদেভের মতে নিকট প্রাচ্য সংক্রান্ত সম্মেলন হওয়া উচিত মস্কোয়. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির মতে প্রধান সমস্যা হল এই যে, এখনো পর্যন্ত পক্ষদ্বয় পরস্পরকে ভালভাবেশুনছে না. তবুও, মেদভেদেভ এ আশা প্রকাশ করেন যে, নিকট  ভবিষ্যতে পরিস্থিতি অচলাবস্থা থেকে সরবে, সেই সঙ্গে ফরাসী পক্ষের মধ্যস্থতায়ও.