ভারত ও পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ফলপ্রসূ সংগ্রাম চালানোর উদ্দেশ্যে যোগাযোগ চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সমঝোতায় এসেছে. পাকিস্তানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে আলাপ-আলোচনার  ভিত্তিতে এ সম্বন্ধে বলেছেন ভারতের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিরুপমা রাও. তিনি স্বীকার করেন যে, পাকিস্তান ২০০৮ সালের নভেম্বরের ঘটনাবলির তদন্তের ব্যাপারে নির্দিষ্ট প্রচেষ্টা চালিয়েছে, তবে তা যথেষ্ট নয়. তিনি জোর দিয়ে বলেন, পাকিস্তানের আরও বেশি কিছু করা উচিত এ আক্রমণের আয়োজককে শাস্তি দেওয়ার জন্য, এবং যোগ করে বলেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষের সর্বপ্রথমে গ্রেপ্তার করা উচিত এর আয়োজনের জন্য প্রধান সন্দেহভাজন হাফিজ সইদকে. ভারতের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাকিস্তানের মন্ত্রীকে তদন্তের শেষ ফলাফল সম্বলিত ফাইল অর্পন করেন এবং ইস্লামাবাদকে আহ্বান জানান পুনায় সাম্প্রতিক সন্ত্রাসের আয়োজককে ধরতে সাহায্য করার,- এ সন্ত্রাসে ১৬ জন নিহত হয়. সেই সঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে শ্রীমতী রাও উল্লেখ করেন যে, পাকিস্তানের সাথে পূর্ণ পরিসরের সম্পর্ক পুনরারম্ভের জন্য সময় এখনও পার হয়ে যায় নি. আজকের সাক্ষাত্ এ দিকে প্রথম পদক্ষেপ মাত্র,-বলেন তিনি. শ্রীমতী রাও জানান যে, ইস্লামাবাদ সফরের জন্য পাকিস্তানী সহকর্মীর আমন্ত্রণ তিনি গ্রহণ করেছেন.