রাশিয়া আজ জাতীয় রক্ষী দিবস পালন করছে, বেসরকারী ভাবে ২৩ শে ফেব্রুয়ারী সমস্ত পুরুষ মানুষদের দিন বলে মানা হয়ে থাকে. মস্কো ও বহু অন্যান্য শহরে আজ জাতীয় রক্ষী দিবস উপলক্ষে আনুষ্ঠানিক মিছিল, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, জাতীয় পোষাকের প্রদর্শনী এবং নাট্য উত্সব হবে. রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর নানা ঘাঁটি ও ছাউনিতে ২৩শে ফেব্রুয়ারী উপলক্ষে প্যারেড করা হবে. আজ সন্ধ্যায় রাজধানীতে, সামরিক কারণে সম্মানিত শহর গুলিতে, বিভিন্ন আঞ্চলিক কেন্দ্রীয় শহরে শত সহস্র কামান দিয়ে পরপর তিরিশ বার আকাশে রঙীণ আতস বাজীর স্যালুট করে এই দিনে পিতৃভূমির রক্ষায় যাঁরা প্রাণ দিয়েছেন এবং যাঁরা বেঁচে আছেন, তাঁদের সবাইকে মনে করে বাজী পোড়ানো হবে, বলে ইতার তাস সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে. জাতীয় রক্ষী দিবসে রুশ লোকেরা দেশের সৈন্য বাহিনীকে, যাঁরা দেশের জন্য আন্তর্জাতিক যুদ্ধ ক্ষেত্রে যুদ্ধ করেছেন, ভেটেরান দের, যাঁরা বর্তমানে সেনা বাহিনীতে আছেন, তাঁদের সবাইকে ও তাঁদের পরিবারকে  নিজেদের সম্মান ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে থাকেন. তাঁরাই প্রথম মানুষ, যাঁরা দেশের উপর কোন রকম আক্রমণ হলে প্রথমে নিজেদের প্রাণ দিয়ে রক্ষা করেছেন এবং এখনও করে থাকেন. জাতীয় রক্ষী দের সব সময়েই ভাগ্য ছিল কঠিন. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ, এই উত্সবের আগে মস্কোতে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করতে গিয়ে বলেছেন যে দেশের সামরিক বাহিনীর স্ট্র্যাটেজিক লক্ষ্য হল দেশকে যে কোন ধরনের আগ্রাসন থেকে রক্ষা করা, তিনি বলেছেনঃ "আমাদের লক্ষ্য দেশের সামরিক বাহিনীকে একটি ফলপ্রসূ, আধুনিক বিশ্বের সমস্ত বিপদের মোকাবিলার জন্য প্রয়োজনীয় বাহিনীতে পরিণত করা, যা যে কোন রকমের বিপদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে পারবে ও আন্তর্জাতিক ভাবে নিরাপত্তা এবং ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় বাস্তবিক কারণ হবে".