রাশিয়ার বিয়াথলন প্রতিযোগিতায় বহু প্রতীক্ষিত সোনা অবশেষে মিলেছে. মাস স্টার্ট প্রতিযোগিতায় ইভগেনি উস্ত্যুগভ সব কটি লক্ষ্যে অব্যর্থ ভাবে গুলি করে, অন্য দের তাঁকে অতিক্রম করার কোন রকম উপায় না রেখে শেষের সীমা রেখা গর্বিত ভাবে একা পার হয়েছেন. এ দিনে মেয়ে বিয়াথলন প্রতিযোগিরা কোন রকম আক্ষেপের অবকাশ রাখেন নি. রূপো পেয়েছেন ওলগা জাইত্সভা.

    রুশ বিয়াথলন প্রতিযোগিরা – এ বারের অলিম্পিকের পদক জয়ের প্রধান আশা এবং বর্তমানে তাঁদের সমকক্ষ কেউ নেই বলে সারা দুনিয়ার বিশেষজ্ঞরা এবং সংবাদ সংস্থা এই অলিম্পিকের আগে বলেছিল. কিন্তু পরপর তিনটি প্রতিযোগিতায় তাঁরা চার নম্বরের উপরে উঠতেই পারছিলেন না. কখনও অতিরিক্ত বরফ পড়া, কখনও বৃষ্টি, কিংবা সাফল্য মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে – ইত্যাদি কারণ অনেক বলা হয়েছে. তাই এই মাস স্টার্ট প্রতিযোগিতার আগে অনেক আশা করা হয়েছিল. খেলোয়াড়েরা নিজেরাও তা বুঝতে পেরেছিলেন. ইভগেনি উস্ত্যুগভ তাঁর দৌড় শেষ করেই বলেছেন – "এত উদ্বেগ আমি অনেক দিন অনুভব করি নি কোন দৌড়ের আগে".

    "শুরু থেকেই দৌড় ছিল খুব দ্রুত গতির, কষ্টকর আর খুব তীক্ষ্ণ, কিন্তু শেষের দিকে আমি (আমার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী স্লোভাকিয়ার পাভেল হু রাইট, যেন কিছু মনে না করেন) বুঝতে পারছিলাম যে, আমি ওর থেকে বেশী শক্তিশালী এবং ভাল, তাই ঠিক করেছিলাম নিজেই উদ্যোগ নেওয়ার. আমি জানতাম না আমাদের পেছনে কে আসছে তৃতীয় স্থানে, কিন্তু যে কোন অবস্থাতেই বুঝতে পেরেছিলাম যে, আমাকে অনেকটাই এগিয়ে থাকতে হবে. য ঘটে, তা ভালর জন্যই ঘটে, আর শেষ অবধি আমরা আমাদের জন্য এবারের অসফল অলিম্পিকের দরজার তালা ভাঙতে পেরেছি, পদক আমাদের পাওয়া হয়েছে".

    প্রথম বার গুলি করার পর একসাথে কুড়ি জন খেলোয়াড় সব কটি লক্ষ্য বিনা ভুলে বিদ্ধ করে আবার দৌড় শুরু করেছিল, কিন্তু দ্বিতীয় লক্ষ্য ভেদের পরই নেতৃত্ব কারী দলের লোক সংখ্যা কমতে শুরু করেছিল. আর শেষ লক্ষ্য ভেদ করার পর সোনার পদকের জন্য লড়াই করতে পারার মত অবস্থায় মাত্র দু জনই ছিল – ইভগেনি উস্ত্যুগভ এবং স্লোভাকিয়ার পাভেল হু রাইট. কিন্তু যদি বা লক্ষ্য ভেদ করার সময়ে দুজনই নিখুঁত থাকতে পেরেছিলেন, তো স্কি দৌড়ে রুশ খেলোয়াড় প্রতিদ্বন্দ্বীকে টপকে অনেক দূরে চলে গিয়েছিলেন. "অবশেষে সাফল্য আমার দিকে ফিরে তাকিয়েছে" – বলেছেন উস্ত্যুগভ.

    "আমি সবার আগে শেষ করতে পেরেছি, আমি তাতে খুশী, সন্তুষ্ট! আমার মনের মধ্যে মাথার ভিতরে আমি টের পাচ্ছি যে, আমি সব বিরাট খেলোয়াড়দের হারাতে পেরেছি. মাস স্টার্ট  - এটা একেবারে অন্য রকমের অনুভূতি. আর এখানেই সাফল্য আমার দিকে ছিল. কয়েকটা গুলি লক্ষ্য ভেদ করেছে এমন ভাবে যেন সেই রকমই হওয়ার কথা. বাস্তবেই আমার জেতার কথা ছিল. আমি আনন্দিত. আমি প্রতিটি দৌড়ে জেতার জন্যই যোগ দিয়ে থাকি. আর তারপর যেমন হয়, তেমনই ফল পেয়ে থাকি. আজ আমার জয়ের ইচ্ছা ছিল, আর তা আমি করতে পেরেছি".

    এখানে একক দৌড়ের পর একটি ভুল নিশানা ইভগেনি কে পদক জয়ের আশা থেকে দূরে ঠেলে দিয়েছিল. তাই এবারে তিনি সব কিছুই করেছেন, যাতে গুলি করার সময় নিশানা থাকে অব্যর্থ. কারণ মাস স্টার্ট – এমন দৌড়, যেখানে সব ঠিক হয় শেষ অধ্যায়ে. ইভগেনি উস্ত্যুগভ স্বীকার করেছেন যে, তিনি নিশানা ভেদের বিষয়ে খুব উদ্বিগ্ন ছিলেন এবং আবার খেলোয়াড়ের জন্য সব চেয়ে দুঃখের জায়গা, চতুর্থ স্থান পেতে চান নি. "কোথাও একটা খুব মনের গভীরে, আমার খুবই লুকোনো আশার মধ্যে অলিম্পিক সাফল্যের জন্য একটা স্বপ্ন ছিল, কিন্তু সত্য বলতে গেলে বলতে হয়, আমি ইচ্ছা করে অলিম্পিকে জয় বা সোনার মেডেল পাওয়ার কথা ভাবি ও নি".

    রাশিয়ার মেয়েরা বিয়াথলন প্রতিযোগিতায় প্রথম পদক জিতেছেন, তুরিনের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন ওলগা জাইত্সভা রূপো জিতেছেন. পদক পাওয়ার মঞ্চে একটুর জন্য ওলগা মেদভেদত্সভা উঠতে পারেন নি. তিনি মাস স্টার্ট প্রতিযোগিতায় চতুর্থ. সুতরাং অবশেষে বলা যেতে পারে যে, রুশ বিয়াথলন প্রতিযোগিতার খেলোয়াড়েরা তাঁদের ফ্যান দের কাছে আবার প্রিয় হতে পেরেছেন.

<sound>