সামরিক অভ্যুত্থানের ফলে নিগের দেশে ক্ষমতা দখল করেছে ব্যাটেলিয়নের কমাণ্ডার সালু ঝিবোর নেতৃত্বে সেনা বাহিনী দেশের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য নব গঠিত পরিষদের তিনি সভাপতি হয়েছেন. কিছু আগে তাঁর নেতৃত্বে সেনা বাহিনী রাষ্ট্রপতি ভবন ঘিরে ফেলে কামান থেকে গোলা বর্ষণ করে. আজ দেশের রেডিও তে ঝিবোর ঘোষণাতে জানা গিয়েছে যে, দেশের সরকার তিনি বাতিল করেছেন, বর্তমানের সংবিধান তিনি মানছেন না এবং রাত্রে সারা দেশে কার্ফ্যু জারী করা হয়েছে. এ ছাড়া দেশের স্থল পথে ও আকাশ পথে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে. বিশ্বে ইউরেনিয়াম উত্পাদক দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে থাকা দেশের নতুন সরকারে লেফটেন্যান্ট গুকোয়ে আবদুল করিম এবং দিঝিব্রিল্লা হিমা হামিদু রয়েছেন, যাকে এখানে লোকে পেলে বলে চেনে এবং তিনি দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রীয় সামরিক ঘাঁটির দায়িত্বে আছেন. নিগের দেশের রাজধানীতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে আবদুল করিম বলেছেন যে, আমরা সামরিক বাহিনী, আমরা দেশের ক্ষমতা নিজেদের হাতে নিয়েছি, দেশের অশান্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির সামল দিতে. দেশের উত্খাত হয়ে যাওয়া রাষ্ট্রপতি মামাদু তাঞ্ঝা এবং তাঁর মন্ত্রী সভার সদস্যরা গ্রেপ্তার হয়ে জেলে আছেন, তার মধ্যে রাষ্ট্রপতিকে ও মন্ত্রীদের সেনারা তনদিবা সামরিক ঘাঁটিতে ধরে রেখেছে. গত বছরের বসন্ত কালে নিগের দেশে রাজনৈতিক সঙ্কট চরমে ওঠে, যখন ৭১ বছরের তাঞ্ঝা এক জনমতের ভোটের নামে নিজের রাষ্ট্রপতি থাকার মেয়াদ বাড়িয়ে নেন এবং তার পরে এই পদে থাকার জন্য একাধিক বার ভোটে দাঁড়িয়ে নিজের জন্য আজীবন রাষ্ট্রপতি পদের ব্যবস্থা করেন.