চীন মার্কিন রাষ্ট্রপতির দালাই লামার সঙ্গে দেখা করার জন্য ভর্ত্সনা করেছে. রয়টার সংবাদ সংস্থার খবরে প্রকাশ যে, বেইজিং বলেছে এই সাক্ষাত্কার দুই দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভিত্তি মূলক নীতি বহির্ভূত কাজ হয়েছে. চীনের পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রতিনিধি বলেছেন যে ওবামার তিব্বতের বৌদ্ধ দের নেতার সঙ্গে দেখা করা আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ঘোষিত মূল নীতি তে বলা তিব্বত চীনের এলাকা বলে স্বীকার করার এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তিব্বতের স্বাধীনতার প্রয়াস সমর্থন করে না এই কথার পুরোপুরি উল্টো কাজ করা হয়েছে. ওয়াশিংটনে এর আগে দালাই লামা ও মার্কিন রাষ্ট্রপতির সাক্ষাত্কার হয়েছে. এই সময়ে ওবামা বলেছেন যে, তিনি আশা করেন নির্বাসিত তিব্বতী মানুষেরা চীনের সরকারের সঙ্গে সরাসরি কথা বলতে পারবে. দালাই লামা নিজে মার্কিন রাষ্ট্রপতির কার্য নিবাস ছেড়ে যাওয়ার সময়ে সাংবাদিকদের বলেছেন যে, তিনি নিজে এই সাক্ষাত্কারে খুবই সন্তুষ্ট হয়েছেন. তাঁর কথা মতো, তিনি মার্কিন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ব্যক্তি মানুষের মূল্য, ধর্মীয় ঐকতান এবং তিব্বতের লোকেদের প্রয়োজন এবং দায়িত্বের বিষয়ে কথা বলেছেন. চীনের পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে বহু বার সাবধান করে দেওয়া হয়েছিল যে, দালাই লামার সঙ্গে সরকারি সাক্ষাত্কার চীন মার্কিন সম্পর্ক খারাপ করতে বাধ্য. এমনিতেই বর্তমানে চীন মার্কিন সম্পর্ক খারাপ হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তাইওয়ান কে কয়েক বিলিয়ন ডলার মূল্যের সমরাস্ত্র বিক্রীর সিদ্ধান্তের জন্য.