রাশিয়ার লোকেদের গর্ব করার মতো আরো একটা কারণ জুটল. বিশ্বের বিখ্যাত রেইড – রালি ডাকার – ২০১০  এ মালবাহী গাড়ীর দৌড় প্রতিযোগিতায় একই সঙ্গে ভ্লাদিমির চাগিন ও ফিরদৌস কাবিরভের কামাজ – মাস্টারস্ দল যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানটি দখল করে নিয়েছেন. মোটর সাইকেল ও চার চাকার কোয়াড্রোসাইকেল বিভাগে রাশিয়ার কোন দল অংশ নেয় নি. রাশিয়ার পক্ষ থেকে সাধারন গাড়ীর বিভাগে অংশ নেওয়া দুটি দল বিশেষ কোন ফল দেখাতে পারে নি.

    ডাকার প্রতিযোগিতার মধ্য দূরত্ব অতিক্রমের সময় থেকেই রাশিয়ার মালবাহী গাড়ীর দলগুলির নেতৃত্ব ছিল বিবাদের উর্দ্ধে, সারা বিশ্বের খেলার বিষয়ে বুক মেকারেরা বাজী ধরেছিলেন, চাগিন ও কাবিরভের দলের উপরে. অন্যান্য প্রতিযোগীদের জন্য প্রথমে আর্জেন্টিনা ও পরে চিলিতে প্রতিটি নতুন স্টার্টই ছিল ওদের অতিক্রম করার জন্য আরও দুঃসাধ্য. শনিবার ১৪ ও শেষ পর্যায়ের দৌড়ে কামাজের দলের জন্য এই পর্যায় একটা হাল্কা ধরনের বেড়ানোতে পরিণত হয়েছে. ঠিক করলে বললে, বলতে হবে যে, আসলেও হয়েছে ঠিক তাই. যদিও তিরিশ বছর ধরে চলে আসা এই গাড়ীর রালির পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে শেষ পর্যায়েই, বাস্তবে অনেক সময়ই প্রতিযোগিরা বিশেষত ফেভারিটেরা পথে দূরত্ব থেকে খসে পড়েন. কথার সমর্থন হিসাবে বলা যেতে পারে  যে, ১লা জানুয়ারী শুরুর দিনে প্রায় বেশ কয়েক দশক দেশের ৬০০ টি প্রতিযোগী দল এই দূরত্ব অতিক্রম করবার ইচ্ছা নিয়ে স্টার্ট নিয়েছিলেন, আর প্রায় অর্ধেকের বেশী দল মাঝপথেই গাড়ী খারাপ হওয়া বা প্রতিযোগী অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণে দৌড় থেকে নাম ফিরিয়ে নিয়েছেন.

    ভ্লাদিমির চাগিন শেষ পর্যায়ে শুধুমাত্র বিনা ভুলে দূরত্ব অতিক্রমই করেন নি, বরং বেশ কয়েকটি ব্যক্তিগত রেকর্ড ও করেছেন. এই রালির ইতিহাসে তিনি সেরা মালবাহী গাড়ীর ড্রাইভার হয়েছেন, রাশিয়ার এই খেলোয়াড়দের দল রেইড – রালির বিভিন্ন পর্যায়ে ৫৬ বার জয়ী হয়েছেন, মোটর সাঈকেল ও মালবাহী গাড়ীতে এর আগে নয় বার বিজয়ী ও রেকর্ড করা স্টেফান পেত্রান্সেলের চেয়ে এটা একবার বেশী. দলগত ভাবে দেখলে কামাজ দল এই নিয়ে নবম বার জয়ী হতে পেরেছে.

    এবারের বিজয়ী ফোক্সওয়াগেন দলের স্পেনের কার্লস সাইন্স সাধারন গাড়ী বিভাগে এর আগে আরও দুবার অন্য রালিতে বিজয়ী হয়েছিলেন. তাঁর জন্য এটা ডাকার রালিতে প্রথম বিজয়. ফিনিশে তিনি তাঁর দলের অন্য খেলোয়াড় নাসের আল- আত্তিয়ার চেয়ে দু মিনিট আগে শেষ করতে পেরেছেন. ফ্রান্সের সেরিল দেপ্রে মোটর সাইকেল বিভাগে এই বার নিয়ে তৃতীয় বার ডাকার রালিতে যে জিতবেন, তা আগেই ধরা ছিল. ডাকারের সেরা কোয়াড্রোসাইকেল চালক হয়েছেন ইয়ামাহা চালক আর্জেন্টিনার মার্কোস পাত্রোনেল্লি, তিনি তাঁর ভাই আলেহান্দ্রোর চেয়ে প্রায় এক ঘন্টা আগে প্রতিযোগিতার ফিনিশে পৌঁছেছেন. আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনাস আঈরেসে রবিবারে ডাকার প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের পুরস্কার দেওয়া হয়েছে.

    ডাকার – ২০১০ এর মধ্যেই ইতিহাসে পরিণত হয়েছে. এখনই আয়োজকেরা আগামী বছরের জন্য পরিকল্পনা শুরু করেছেন. এক মতে প্রতিযোগিতাকে তার ঐতিহাসিক জন্মস্থান আফ্রিকাতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে, অন্যমতে ডাকার – ২০১১হবে এবারের মতই লাতিন আমেরিকাতে. কেউ আবার ভাবছেন এই প্রতিযোগিতা অস্ট্রেলিয়াতে নিয়ে যাওয়াও হতে পারে. যাই হোক না কেন ডাকার – ২০১১ প্রতিযোগিদের জন্য কঠিন আর ফ্যানেদের জন্য আকর্ষক অবশ্যই হবে.