রাশিয়ার বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের তিনটি বিমান আজ সকালে হাইতি দ্বীপপুঞ্জের বিধ্বংসী ভূমিকম্পের পর সেখানে উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যের জন্য উড়ে গিয়েছে. এই বিমান গুলিতে উড়ে গিয়েছেন, ডাক্তার, ত্রাণ কর্মী, বিমানে পরিবহন যোগ্য হাসপাতাল, বিশেষ ধরনের গাড়ী, যন্ত্রপাতি এবং ধ্বংস স্তুপের ভিতর থেকে মানুষের উদ্ধার করতে পারে এমন ভাবে শিক্ষিত কুকুরের দল. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভের নির্দেশ অনুযায়ী এই সাহায্য পাঠানো হয়েছে.
হাইতিতে বিগত দেড় শো বছরের মধ্যে মঙ্গলবারের তীব্রতম ভূমিকম্পের একদিন পরেও নিহতের সংখ্যা অথবা সম্পত্তির ক্ষয় ক্ষতির কোনো পরিসংখ্যান দেওয়া সম্ভব নয়. প্রেসিডেন্ট রেনে প্রেভালের বিবৃতি অনুযায়ী বহু সহস্র মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন. প্রধানমন্ত্রী জাঁ-ম্যাক্স বেলরিভ ইতিপূর্বে লক্ষাধিক মানুষের নিহত হওয়ার কথা বলেছিলেন. সাত মাত্রা শক্তি শালী ভূমিকম্প এবং তার পরে বহু বার পুনরাবৃত্তি হওয়া কম শক্তির ভূকম্পনে হাজার হাজার বাড়ি, হাসপাতাল, স্কুল, সরকারি ভবন, প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ এবং জাতিসংঘের দপ্তর ধ্বসে পড়েছে. রাজধানী পোর্তো প্রঁসের একটি বড় অংশ, বিশেষ করে দরিদ্র এলাকাগুলি পুরোপুরি বিধ্বস্ত. এই ভূমিকম্পে ৫০ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসন ও রেড ক্রসের অনুমান. টেলিফোন এবং অন্যান্য যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার ফলে ত্রাণকার্য আরো কঠিন হয়েছে. রাস্তাঘাট এবং বিদ্যুত কিংবা জল সরবরাহ, সবই বিপুল ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে. তবে হাইতির বৃহত্তম বিমানবন্দরটি এখনও কাজ চালানোর উপযোগী বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে.
হাইতিতে ভূমিকম্প বিপর্যয়ের পর প্রথম বিমানগুলি ত্রাণ সামগ্রী, খাদ্য দ্রব্য, পানীয় জল এবং ঔষধ পত্র নিয়ে পোর্তো প্রঁস যাত্রা করেছে. যুক্তরাষ্ট্র এবং আইসল্যান্ড থেকে উদ্ধার কর্মীদের একাধিক দলও রাজধানীতে পদার্পণ করেছে. মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বিপর্যয় এলাকায় একাধিক যুদ্ধ জাহাজ পাঠিয়েছেন, যাদের মধ্যে একটি বিমান বাহী পোতে আরো কিছু হেলিকপ্টার আছে. সীমান্ত বিহীণ চিকিত্সক সংগঠন তাঁবুর নীচে একাধিক মোবাইল ক্লিনিক স্থাপন করেছে. বিশ্ব ব্যাঙ্ক হাইতির জন্য তাত্ক্ষণিক সাহায্য হিসেবে সাত কোটি ইউরো পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ করেছে এবং একটি বিশেষ সাহায্য তহবিল সৃষ্টির কথা ঘোষণা করেছে. আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলও হাইতিকে শীঘ্র আর্থিক সাহায্য দেবে. জার্মান সরকার ১৫ লক্ষ ইউরো সত্ত্বর সাহায্য বরাদ্দ করেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন দিচ্ছে ৩০ লক্ষ ইউরো. আহতদের একটি স্টেডিয়ামে রাখা হয়েছে. বুভুক্ষা ও সংক্রামক রোগ থেকে আরও বহু মানুষের প্রাণ হানির আশংকা আছে বলে জানানো হয়েছে. চীন, ব্রাজিল, ভেনেজুয়েলা ও আরও বহু দেশ ত্রাণ ও উদ্ধার কার্যের জন্য সাহায্য পাঠিয়েছে. বহু সাধারন মানুষও এই ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত নাগরিকদের জন্য বিশ্বব্যাপী অর্থ সংগ্রহ এবং সাহায্য করতে শুরু করেছেন.
রাশিয়া থেকে ত্রাণ কর্মী পাঠানো ছাড়াও বিশেষজ্ঞ দল পাঠানো হবে, যাঁরা বিভিন্ন ধরনের বিপর্যয় নিরসনে এর আগেও অংশ নিয়েছেন বিশ্বের বহু দেশে, যেমন, তুরস্কে, আফগানিস্থানে, ইরানে, ইন্দোনেশিয়াতে, পাকিস্থানে, শ্রীলঙ্কায়, যুগোস্লাভিয়া ও দক্ষিণ অসেতিয়াতে.
(sound)