২৪৫ বছর আগের কথা, রাশিয়ার জারিনা মহান দ্বিতীয়া ইকাতেরিনা সৃষ্টি করেছিলেন সেন্ট পিটার্সবার্গে রাশিয়ার বৃহত্তম শিল্প সংগ্রহ শালা হার্মিটেজ মিউজিয়ামের.

    ১৭৬৪ সালে সেন্ট পিটার্সবার্গে হল্যান্ড ও ইতালির বিখ্যাত শিল্পীদের ২২৫ টি ছবি আনানো হয়েছিল. প্রুশিয়ার রাজা দ্বিতীয় ফ্রেডরিখ সাত বছরের যুদ্ধে হেরে গিয়ে নিঃসম্বল হয়ে পড়েছিলেন, আর দ্বিতীয় ইকাতেরিনা যুদ্ধে জিতে প্রতিশোধ নিলেন ফ্রেডরিখের জন্য রাখা সংগ্রহ কিনে নিজের দেশের বিপুল ধন সম্পত্তির প্রমাণ দিয়ে এবং প্রুশিয়ার রাজাকে আরও একবার পরাজিত করে. সেই সময়েই জারিনা একটি দুই তলা বাড়ী তাঁর প্রাসাদের পাশে বানিয়ে এই সংগ্রহ শালাকে স্থাপন করেছিলেন, এই খান থেকেই ছোট হার্মিটেজ মিউজিয়ামের শুরু. স্থপতি ফেলটেন বানিয়েছিলেন প্রথম বাড়ী, তারপর আরও একটি ক্ল্যাসিকাল বাড়ী বানালেন স্থপতি ভাল্লেন-দেলামত এবং আগের বাড়ীর সাথে নতুন টিকে জুড়ে দিলেন ঝুলন্ত শীত গ্রীষ্ণ নিরপেক্ষ উদ্যান দিয়ে, সেখানেও ছবি প্রদর্শনীর ব্যবস্থা হল. ১৭৬৯ সালে পিটার্সবার্গে স্যাকসোনিয়া থেকে গ্রাফ ব্রিউলের সংগ্রহের সবটাই নিয়ে আসা হয়েছিল, যেখানে ছিল প্রচুর ছবি ও এচিং. হল্যান্ড, ফ্লামাণ্ড, ফরাসী, ইতালি ও জার্মান দেশের শিল্পীদের বিখ্যাত সব কাজ, ৬০০ র বেশী. হার্মিটেজে দেখা গেল রেমব্র্যান্ট, রুবেন্স, প্রুসেন ও ভাত্তো র আঁকা ছবি.

ইকাতেরিনা এতেই থামলেন না, তিনি আরও কিনতে থাকলেন এবং আরো প্রাসাদও বানাতে থাকলেন. ১৭৭২ সালে প্যারিসে কিনেছিলেন ক্রোজ পরিবারের সংগ্রহের রাফায়েলো, জর্জনে, ভেরোনেজে, ভান ডাইক, টিসিয়ান ও অন্যান্য অনেক বিশ্ব বিখ্যাত শিল্পীর কাজ. তখন স্থপতি ফেলটেন শুরু করেছিলেন বড় হার্মিটেজের নির্মাণ কাজ. এই বাড়ীটির স্থাপত্যে যে কঠোর নীতি ও সহজ রূপ দেওয়া হয়েছে তা সহজেই নেভা নদী তীরের রাজবাড়ীর সাথে মিলে যায়. ১৭৯২ সালে স্থপতি কভারেঙ্গি এই বড় হার্মিটেজের বাড়ীর সাথে আরও একটি ছোট বাড়ী জুড়ে দেন. নতুন বাড়ীটি ভ্যাটিকান শহরে পোপের সংগ্রহশালার প্রায় প্রতি কল্প.

এই ভাবেই শুরু হয়েছিল হার্মিটেজ মিউজিয়াম, যা বর্তমানে একটি বিশ্ব বিখ্যাত শিল্পের ভাণ্ডার. এখন এখানে প্রাচীন ইজিপ্টের শিল্প থেকে ইউরোপীয় ক্ল্যাসিকাল শিল্পের প্রায় সবই দেখতে পাওয়া যায়. মিউজিয়ামের এই বিশাল কাল ক্রমিক সংকলন কে প্রধান মিখাইল পিয়ত্রোভস্কি বিশেষ মূল্য দিয়ে থাকেন.

"আমরা পেয়েছি একটি দারুণ মিউজিয়াম, এখন আর এই ধরনের মিউজিয়াম তৈরী হচ্ছে না. প্রাচ্য এবং পাশ্চাত্য সংস্কৃতির আলাপচারীতার ফল এই সংগ্রহ শালা, আমরা চাই মানুষ এখানে এসে শিখুক, যাতে বোঝা যায় যে, সংস্কৃতি বিবিধ ধারায় বহমান এবং তা আমাদের জীবনকে আরও উন্নত করে তোলে".

দ্বিতীয়া ইকাতেরিনা তাঁর জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত শিল্প সংগ্রহ করে গিয়েছিলেন, ভুললে চলবে না তিনি নিজেও ছিলেন প্রুশিয়ার থেকে. তাঁর শেষ সংগ্রহ ছিল ইংল্যান্ড থেকে আনানো প্রাচীন ভাস্কর্যের এক বিশাল সংগ্রহ.

আজ হার্মিটেজ মিউজিয়াম এক অতি বিশাল সংগ্রহশালা. সারা বিশ্বে এর সংগ্রহ দেখিয়ে বেড়ানো হয়. আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী ও রাশিয়া জুড়ে এর নানা আঞ্চলিক সংগ্রহশালাতে প্রদর্শনী করা হয়ে থাকে. এই মিউজিয়ামের প্রধান পিয়ত্রোভস্কি সারা বিশ্বের ১১টি দেশের জাতীয় সম্মান প্রাপ্ত, এই পদকের মধ্য ফরাসী দেশের অর্ডার অফ লিজিয়ন, জাপানের ভোরের সূর্য, সুইডেনের ধ্রুবতারা পদক রয়েছে. সদ্য পাওয়া মার্কিন উড্রো উইলসনের নামাঙ্কিত পদকও এরই মধ্যে. আরও আছে ইতালি, পোল্যান্ড, আর্মেনিয়া, ইউক্রেন, ফিনল্যান্ড, হল্যান্ড এবং অবশ্যই রাশিয়ার পদক.