পের্ম শহরের নাইট ক্লাবে অগ্নিদগ্ধ দের মধ্যে প্রায় ৪৫ জনকে মস্কো শহরে চিকিত্সার জন্য পাঠাতে হতে পারে বলে পের্ম অঞ্চলের প্রশাসন থেকে শনিবারে জানানো হয়েছে. এদের মধ্যে ১৩ জনের ফুসফুসে কৃত্রিম ভাবে শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যবস্থার প্রয়োজন. প্রশাসন জানিয়েছে যে, পের্ম শহরে মস্কোর উপকন্ঠে রামেনস্কোয়ে বিমান বন্দর থেকে পাঠানো বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের  একটি ই এল – ৭৬ বিমান ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্যের জন্য পৌঁছেছে. এই বিমানে আসা চিকিত্সকেরা ইতিমধ্যেই শহরের হাসপাতাল গুলিতে গিয়ে পর্যালোচনা করে দেখছেন, আহতদের কাউকে মস্কোতে চিকিত্সার জন্য পাঠানো সম্ভব হবে কিনা. ইয়াক -৪২ বিমানে চড়ে পের্ম শহরে গিয়েছেন প্রশাসনের বিশেষ পরিষদের সদস্যরা এই ট্র্যাজেডি ঘটার কারণ অনুসন্ধান করতে এবং ক্ষতিগ্রস্থ দের সাহায্য করার জন্য. সদস্য দলের নেতা বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের প্রধান সের্গেই শইগু. পের্ম শহরে আরও এসেছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রশিদ নুরগালিয়েভ এবং স্বাস্থ্য ও সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রী তাতিয়ানা গোলিকভা. ভোর পাঁচটা সাতান্ন মিনিটে মস্কো থেকে আরও একটি ইয়াক – ৪২ বিমানে করে আরো চিকিত্সক ও মনস্তত্ববিদদের বিপর্যয় নিরসন দপ্তর থেকে পাঠানো হয়েছে বলে এই দপ্তর শনিবারে খবর দিয়েছে. পের্ম শহরের এই অগ্নিকাণ্ডে এখন অবধি ১১২ জন মৃত ও ১৩০ জন আহত হওয়ার খবর দেওয়া হয়েছে. আহত লোকেরা পের্ম শহরের নানা হাসপাতালে রয়েছেন. এদের মধ্যে ৮৫ জনের অবস্থা আশংকা জনক.