ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং আশা করেন যে, মস্কোয় আসন্ন পরবর্তী দ্বিপাক্ষিক শীর্ষ বৈঠক ভারত-রুশ মৈত্রী আরও সুদৃঢ় করতে সাহায্য করবে এবং রাশিয়ার সাথে রণনৈতিক শরিকানা আরও গভীর হবে, প্রসারিত হবে এবং মর্মে পরিপূর্ণ হবে. নিজের রাশিয়া সফরের প্রাক্কালে রাশিয়ার সাংবাদিকদের প্রদত্ত ইন্টারভিউতে তিনি উল্লেখ করেন যে, রাষ্ট্রপতি মেদভেদেভের সাথে তিনি সেই সব পদক্ষেপ আলোচনা করতে চান, যা রাশিয়ার সাথে পারস্পরিক ক্রিয়াকলাপকে নতুন পর্যায়ে উন্নীত করার জন্য প্রয়োজন. ভারত সরকারের নেতা মনে করেন যে, রাশিয়া ও ভারত নিজেদের বিশেষ বিশেষ বিভাগ ও তথ্য ব্যবস্থার কার্যকলাপের সঙ্গতি সাধনের মাধ্যমে ফলপ্রসূ সন্ত্রাসবিরোধী রণনীতি বাস্তবায়ন নিয়ে মিলিতভাবে কাজ করতে পারে. তিনি বলেন, আমরা পরস্পরকে সাহায্য করতে পারি, কারণ ভারত ও রাশিয়া উভয়েই সন্ত্রাসবাদে ক্ষতিগ্রস্ত. ভারত সরকারের নেতা মনে করিয়ে দেন যে, রাশিয়া ও ভারতের মাঝে বাণিজ্যিক ও পুঁজি নিয়োগমূলক সম্পর্ক বেশ কিছু বছর ধরে ঝিমিয়ে পড়েছে. মনমোহন সিং জোর দিয়ে বলেন, ১০০০ কোটি ডলারের পণ্য আবর্তনের পরিকল্পিত মান সম্ভবত অর্জিত হবে ২০১০ সালে, তবে রাশিয়া ও ভারতের অর্থনীতির পরিসর বিবেচনায় রাখলে আমাদের ক্ষমতার তুলনায় তা যথেষ্ট কম. সহযোগিতার প্রাধান্যমূলক ধারার কথায় এসে মনমোহন সিং বিদ্যুত্শক্তি ও জ্বালানী ক্ষেত্রের কথা উল্লেখ করেন, এ ক্ষেত্রে পারস্পরিক ক্রিয়াকলাপের আরও বিকাশে ভারতের আগ্রহের কথা পুনরায় উল্লেখ করেন.