"নেভস্কি এক্সপ্রেসের" বিস্ফোরণের অনুসন্ধানের ফলাফল আর ১০ থেকে ১২ দিন বাদেই বিশেষ করে জানা সম্ভব হবে. রাশিয়ার সরকারি পক্ষের অভিশংসক দপ্তরের অনুসন্ধান পরিষদের প্রধান আলেকজান্ডার বাসত্রীকিন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভের কাছে এই রিপোর্ট পেশ করেছেন.

    রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি গতকাল একটি বিশেষ দায়িত্ব পত্রে স্বাক্ষর করেছেন, রেল পথে সন্ত্রাস জনিত দুর্ঘটনা প্রতিরোধে, এই পত্র প্রকাশের পরেই আলেকজান্ডার বাসত্রীকিন ঘোষণাটি করেছেন. দিমিত্রি মেদভেদেভ "নেভস্কি এক্সপ্রেস" ট্রেনের বিস্ফোরণের অনুসন্ধানকে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ কাজ বলে বর্ণনা করেছেন এবং আরও বলেছেন যে, এই বিস্ফোরণের পিছনের কারণ অবশ্যই জানতে হবে. তিনি বলেছেনঃ

    "আমি রেল পথে যে সন্ত্রাস ঘটেছে তার প্রতিরোধ সম্বন্ধে বিশেষ দায়িত্ব দিয়েছি. এই দায়িত্ব বহুমাত্রিক এবং এর মধ্যে শুধুমাত্র সামাজিক ও অর্থনৈতিক প্রশ্নই নেই, বরং সেই সব প্রশ্ন রয়েছে, যার সমাধানে শুধুমাত্র রেল পথেই নয়, অন্যান্য ক্ষেত্রেও সন্ত্রাসের প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে. এই দায়িত্ব পত্রে সময়সীমা খুবই কঠোর করে বেঁধে দেওয়া হয়েছে".

    সব দিক বিচার করে দেখলে দায়িত্ব পত্রে শুধুমাত্র সময় সীমাই কঠোর করে বেঁধে দেওয়া হয় নি, বরং বিশেষ বাহিনীর প্রধানদের এই বিষয়ে ব্যক্তিগত ভাবে দায়ভার নিতে বলা হয়েছে. সম্ভবতঃ এই ধরনের রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে গতি বৃদ্ধির কারণ হল সন্ত্রাসবাদী কাণ্ডের অনুসন্ধানের কাজের দ্রুততা তাঁর পছন্দ হয় নি, তার ওপর ঘটনাটি ঘটার পর প্রায় এক সপ্তাহ হতে চলেছে.

    এর মধ্যে বিস্ফোরণের পিছনে অনেক শোনা কথা জমা হয়ে বেড়ে উঠেছে. আইন সংরক্ষণ দপ্তর গুলি এই সব কথাকে বলতে চাইছে যে, শুধু কল্পিত বর্ণনা ও সত্য ঘটনার সঙ্গে এর কোন যোগাযোগ নেই ও অনুসন্ধানের কাজে ব্যাঘাত না করতে. বিস্ফোরণ যেখানে ঘটেছে, তার কাছের গ্রামের লোকেরা স্পষ্ট বলেছে যে, ঘটনার কয়েকদিন আগে এই অঞ্চলে কিছু ককেশাসের অচেনা লোককে দেখা গিয়েছিল. এই সব আগন্তুকেরা একটি বাড়ী ভাড়া করেছিল এবং বলেছিল যে, তারা এসেছে এক আত্মীয়কে দেখতে, যে নাকি অল্প দূরের এক জেলে বন্দী হয়ে আছে. সাধারণতঃ এই রকম ঘটনার মধ্যে বিচিত্র কিছুই নেই, কারণ প্রায়ই এই রকম লোকেরা এসে কিছু দিনের জন্য ঘর ভাড়া নিয়ে থাকে, কারণ কোথাও একটা তো থাকতে হবে. এই ঘটনার কথা কেউ মনেও রাখত না, যদিনা এই সন্ত্রাসবাদী ঘটনা ঘটত. আবার তার ওপরে চিচনিয়ার বিভেদ পন্থী দের নেতা আন্তর্জাতিক ভাবে যার খোঁজ করা হচ্ছে, সেই ডোকু উমারভ ইন্টারনেটের এক সাইটে জানিয়েছে যে, এই সন্ত্রাসবাদী ঘটনায় সেও নাকি যুক্ত.

    চিচনিয়ার সরকার অবশ্য এই তথ্যের সততা সম্বন্ধে সন্দেহ প্রকাশ করেছে. চিচনিয়ার প্রেসিডেন্ট রমজান কাদীরভ ঘোষণা করেছেন যে, উমারভের দলের অবস্থা এখন এতই দুর্বল যে, তাদের পক্ষে এই রকম কাণ্ড ঘটানো অসম্ভব. নিজের দর বাড়াতে সমস্ত বড় কাণ্ডের সঙ্গে উমারভ নিজের নাম জড়াতে ভাল বাসে. এমনকি সায়ানো-শুশেনস্কোই জলবিদ্যুত্ প্রকল্পের দুর্ঘটনার সঙ্গেও উমারভ নিজের নাম জড়াতে চেষ্টা করেছিল. যদিও অনুসন্ধান করে দেখা গিয়েছে যে, এই দুর্ঘটনার পিছনে অনেক কারণ থাকলেও কোনটাই সন্ত্রাসের কারণে হয় নি.

    এ ছাড়া আরো নানা ধরনের মতও শোনা যাচ্ছে, যেখানে দুজন পুরুষ মানুষ বা এক পুরুষ ও আর এক মহিলার খবর পাওয়া যাচ্ছে. ফোটো রোবট ও চেহারার বর্ণনা সারা দেশে সর্বত্র পাঠানো হয়েছে. আলেকজান্ডার বাসত্রীকিন বলেছেন, খুব শীঘ্রই তিনি আরও সঠিক খবর দিতে পারবেন. এমন কি হতে পারে অপরাধীদের বিচারের ব্যবস্থা করে দেবেন, কারণ অনুসন্ধানের কাজে যাঁরা রয়েছেন, তাঁরা তো বলছেন যে, তাঁদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ খবর রয়েছে. কিন্তু এই অনুসন্ধানের যাতে ব্যাঘাত না ঘটে, তাই এখন সেই সব খবর বলা যাবে না.