রাশিয়ার রাস্তার তৈরী করার প্রযোজনা দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাবে. আগামী বছরে পরিকাঠামো প্রযুক্তিকে বাস্তবায়িত করার জন্য এক হাজার কোটির বেশী ডলার বিনিয়োগ করার কথা হয়েছে.

    প্রতি হাজার কিলোমিটারে গাড়ী চলার উপযুক্ত রাস্তার অনুপাতে বর্তমানে রাশিয়া ইউরোপের বহু দেশের ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে পিছিয়ে আছে. কিন্তু এমন কি সঙ্কটের সময়েও নতুন আধুনিক গাড়ী চলার উপযুক্ত রাস্তা ও সমস্ত পরিকাঠামো এবং সেতু ও টানেল তৈরীর কাজ চলেছে দ্রুত গতিতে. একই সঙ্গে নতুন প্রযুক্তিকে কাজে লাগানো হচ্ছে, যাতে রাস্তার গুণগত উত্কর্ষ বিশ্বমানের হয়. বিশেষ করে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে রাস্তা তৈরীর বিষয়ে ব্যক্তিগত ও সরকারি মালিকানার বিষয়টিকে যৌথভাবে কাজ করতে দেওয়া. এই বিষয়ে "রসআভতোদর" জাতীয় সড়ক সংস্থার প্রধান আনাতোলি চাবুনিন বলেছেনঃ

    "বর্তমানে দুটি ছাড় দেওয়ার চুক্তি হয়েছে, একটি অদিনত্সভো শহরকে বেড় দিয়ে রাস্তা তৈরী ও অন্যটি জাতীয় সড়ক মস্কো – সেন্ট পিটার্সবার্গের মূল অংশটি তৈরীর বিষয়ে. যাঁরা এই বিষয়ে সরকারের সঙ্গে চুক্তি করেছেন, তাঁরা এখন বিনিয়োগের ব্যবস্থা করছেন আর সরকারের সংস্থা রাস্তা তৈরীর উপযুক্ত জায়গা নিরুপণ করছে. ১লা এপ্রিল থেকে রাস্তা তৈরী করার কাজ শুরু হয়ে যেতে হবে".

    বিভিন্ন সড়ক তৈরীর বিষয়ে সরকারের সঙ্গে ব্যক্তিগত মালিকানার কোম্পানী গুলি অর্ধেক খরচের ভাগ নেওয়ার চুক্তি করেছে. এই ছাড় চুক্তির অর্থনৈতিক অংশ ব্যক্তিগত মালিকানার কোম্পানী গুলির জন্য লোভনীয় হবে বলে আনাতোলি চাবুনিন বিশেষ করে উল্লেখ করে বলেছেনঃ

    "ছাড় দেওয়ার চুক্তি আসলে ব্যক্তিগত বিনিয়োগের উপায়. অর্থাত্ সরকার ও প্রাইভেট কোম্পানী একই সঙ্গে বিনিয়োগ করছে, তার পর এই কোম্পানী রাস্তা তৈরী হওয়ার পর আগামী ২০ বছর রাস্তায় টোল ট্যাক্স আদায় করে নিজেদের বিনিয়োগ ও আগে থেকে হিসেব করা লাভ তুলে নিতে পারবে ও রাস্তাকে ভাল রাখতে পারবে".

    এই রকম ছাড় দেওয়ার প্রকল্প বিশ্বের বহু দেশেই আজ রয়েছে. রাশিয়াতে উপযুক্ত আইন কানুন না থাকায় বহু বছর এই কাজ করা সম্ভব হয় নি, তার ওপরে ভয় ছিল বিদেশী বিনিয়োগকে এই রকম সড়ক পথের মত দেশের নিরাপত্তার স্ট্র্যাটেজির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আসতে দেওয়া যায় কি না সেটা আগে যাচাই করে দেখার. বর্তমানের দুটি প্রকল্পতেই বিদেশী কোম্পানী অংশ নিচ্ছে. ফরাসী কোম্পানী ভিঞ্চি ও রাশিয়ার কোম্পানী লিডার, যাদের সঙ্গে কয়েকটি স্পেন ও পর্তুগালের বিদেশী কোম্পানীও হাত মিলিয়েছে. মস্কো – সেন্ট পিটার্সবার্গ রাস্তার বিনিয়োগের পরিমান হবে প্রায় দেড় শ থেকে দুশো কোটি ডলার আর অদিনত্সভো শহর বেড় দিয়ে রাস্তা তৈরীর দাম পড়বে একশ কোটি ডলারের বেশী. ছাড় দেওয়ার চুক্তির অন্যতম অংশ হল রাশিয়ার কোম্পানী দের এই রাস্তা তৈরীর কাজে নিতে হবে, তার মানে সঙ্কটের সময়ে রাশিয়ার ইঞ্জিনিয়ার ও শ্রমিকদের জন্য কাজের বন্দোবস্ত হবে.