রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা আজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্থানের জন্য নূতন স্ট্র্যাটেজির কথা ঘোষণা করবেন. ওয়াশিংটনে প্রশাসনের বদলের পর এইটি সব চেয়ে বেশী করে অপেক্ষা করা হয়েছে.

    নূতন স্ট্র্যাটেজির বাস্তবায়নের কাছ থেকে আশা করা হয়েছে আফগানিস্থানে যুদ্ধ শেষ হওয়ার কথা এবং একই সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্থানে সামরিক ভূমিকা শেষ হওয়ার কথা. সাংবাদিক সম্মেলনে এই কথা বলেছেন প্রশাসনের প্রতিনিধি রবার্ট গিবস. মনে করিয়ে দেওয়া যেতে পারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোটের বাহিনী আফগানিস্থানে প্রবেশ করেছিল ২০০১ সালে সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলার নাম করে. গত ৮ বছরে তারা বিশেষ কোন সুবিধা করতে পারে নি. আশা যা করা হয়েছিল তার বদলে মধ্য প্রাচ্যে যুদ্ধের আগুন বরং বেশী করে ছড়িয়ে পড়েছে, জোটের ক্ষতি হয়েছে বিরাট. তাই এই কর্মসূচীর পরিবর্তনের প্রয়োজন হয়ে পড়েছে.

    বারাক ওবামার নূতন নীতি তিনি বলবেন আজ ওয়েস্ট পয়েন্ট সামরিক একাডেমীতে. এই ঘোষণার মূল বক্তব্য তিনি ইতিমধ্যেই রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ, ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি নিকোল্যা সারকোজি এবং গ্রেট ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী গর্ডন ব্রাউনের সঙ্গে আলোচনা করেছেন বলে জানা গেছে.

    সব মিলিয়ে যা বোঝা গেছে তা হল, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উপস্থিতি বৃদ্ধির কথা ভাবা হয়েছে.আশা করা যাচ্ছে যে, বর্তমানে আফগানিস্থানের ৬৫ হাজার মার্কিন সৈন্যের সঙ্গে যোগ দেবেন আরও ৩০ হাজারেরও বেশী অফিসার ও সৈন্য. এই পথেই হয়ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সহগামীরাও হাঁটবেন. ন্যাটো জোটের সাধারন সম্পাদক আন্দ্রেস ফগ রাসমুসেন ঘোষণা করেছেন যে, তিনি জোটের দেশ গুলিকেও সৈন্য সংখ্যা বৃদ্ধি করতে বলবেন, যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তা করে. প্রশ্ন টা এখন হল এই সৈন্য বাড়িয়ে কি আফগান সমস্যার সমাধান করা সম্ভব হবে? আমাদের নিকট ও মধ্য প্রাচ্যের বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ইউরি ক্রুপনভ মনে করেছেন এই প্রচেষ্টার ফল সন্দেহ উদ্রেক করে. তিনি বলেছেনঃ

    বোঝাই যাচ্ছে যে, সৈন্য বাড়লে তার সঙ্গে বাড়বে প্রতিহত করবার প্রচেষ্টাও. আর যেহেতু ছোট গেরিলা দল দের এক জায়গায় করে ধ্বংস করা প্রায় অসম্ভব, তাই এই অঞ্চলের পরিস্থিতির আঁচ শুধুমাত্র এখানেই নয়, পাশের অঞ্চল গুলিতেও লাগবে. আমেরিকা তাদের নিজেদের সেনা বাহিনীর ঘাঁটি শক্ত করতে চাইছে, বিশেষত আফগানিস্থানের  ঘন জন বসতি পূর্ণ অঞ্চলে এবং এই ভাবে চাইছে এনক্লেভ নামে যা ওরা বলছে সেগুলোর নিয়ন্ত্রণ করতে. এটাই ন্যাটো ও ওয়াশিংটনের নূতন স্ট্র্যাটেজি. শুধুমাত্র এই জন্যই সৈন্য সংখ্যা বৃদ্ধি করতে চাইছে.

    কিন্তু আমেরিকার ডেমোক্র্যাটিক দলের মধ্যেই এই নীতি নিয়ে বিরোধ রয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি সভার স্পীকার ন্যান্সী পেলোসী এর মধ্যেই সাবধান করে দিয়ে বলেছেন যে, আফগানিস্থানে বিপুল সৈন্য বাহিনী বৃদ্ধির বিপক্ষে দেশের ডেমোক্র্যাটিক দলের লোকসভা সদস্যরা. কংগ্রেসের সদস্যরা এই ক্ষেত্রে দেশের লোকের মানসিকতা লক্ষ্য করেছেন.

    এই মানসিকতা সম্বন্ধে ব্যবস্থা নিতে গিয়ে বারাক ওবামা হয়ত আফগানিস্থানে সামরিক শক্তি প্রয়োগের একটি নির্দিষ্ট সময় সীমা বেঁধে দেওয়ার কথা বলবেন. এই বিষয়ে আগে উল্লিখিত রবার্ট গিবস সাংবাদিক দের কাছে অস্বীকার করেন নি. উনি বলেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আরও ৮ -৯ বছর আফগানিস্থানে থাকতে চায় না.