বিজিঙে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ও চীনা গণপ্রজাতন্ত্রের সভাপতি হু জিনতাও-র আলাপ-আলোচনা শেষ হয়েছে. আলাপ চলে কয়েক ঘন্টা ধরে, তবে তা শেষ হওয়ার পর স্পষ্ট হয়ে ওঠে যে, পক্ষদ্বয় গোটা এক সারি প্রশ্নে পারস্পরিক সমঝোতায় আসতে পারে নি. এর মধ্যে আছে- ইউয়ানের বিনিময় অনুপাতের সমস্যা, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মনে করে স্পষ্টত কমিয়ে রাখা হয়েছে. তাছাড়া অমীমাংসিত রয়ে গেছে চীনা গণপ্রজাতন্ত্রে জাতীয় সংখ্যালঘুদের উত্পীড়নের প্রশ্ন, এবং তিব্বত-কে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি. ওবামা নিজের এশিয়া সফর শেষ করার পর দালাই লামার সাথে সাক্ষাতে মিলিত হতে চান. এ বিষয়টি চীনা নেতৃবৃন্দের তরফ থেকে তীব্র নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া জাগিয়েছে, যাঁরা মনে করেন যে, দালাই লামার সাথে যেকোনো দেশের নেতার যেকোনো যোগাযোগ চীনা গণপ্রজাতন্ত্রের ভূভাগীয় অখণ্ডতা ক্ষুণ্ণ করে এবং তিব্বতে বিচ্ছিন্নতাবাদী মনোভাবে সহায়তা করে. পক্ষদ্বয় তাছাড়া অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা আলোচনা করেছেন, সেই সঙ্গে, বিশ্ব আর্থিক সঙ্কটের প্রতিরোধ, একোলজিক্যাল পরিস্থিতি এবং উত্তর কোরিয়া ও ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি. বিজিঙ ও ওয়াশিংটন সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে আরও ঘনিষ্ঠ পারস্পরিক ক্রিয়াকলাপের ব্যপারে সমঝোতায় এসেছে.