গণতন্ত্রের উপর ভিত্তি করে একবিংশ শতাব্দীতে রাশিয়ার প্রয়োজন সার্বিক আধুনিকীকরণের. এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ, রাশিয়ার পার্লামেন্টের ও জাতীয় সভার সামনে ক্রেমলিনে বাত্সরিক বাণী প্রচার করতে উপস্থিত হয়ে.

    দেশের প্রধান মনে করিয়ে দিয়েছেন, দুই মাস আগে তিনি তাঁর রাশিয়া এগিয়ে চলো নামের প্রবন্ধে নতুন রাজনৈতিক পরিকল্পনার মূল সূত্র গুলি সম্বন্ধে জনগনকে অবহিত করেছিলেন. আর আজ তিনি জাতীয় সভায় তাঁর বাণীতে এই সূত্র গুলিকে কি করে কার্যকরী করা যায়, সেই সম্বন্ধে নির্দিষ্ট পরিকল্পনার কথা বলেছেন. তাঁর ধারণায় দেশের ভবিষ্যত সম্বন্ধে রাষ্ট্রপতি উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়াকে সম্পূর্ণ নতুন ভিত্তিতে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্ রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য প্রয়োজনীয়তা এবং সম্ভাবনা এই দুটি বিষয়েই তিনি দৃঢ় বিশ্বাস করেন. দিমিত্রি মেদভেদেভ ঘোষণা করেছেন, দেশ আর অগ্রবর্তী প্রজন্মের কাজের উপর এবং প্রাকৃতিক তেল ও গ্যাস, পারমানবিক শক্তি ও পুরনো শিল্পের পরিকাঠামোর উপর নির্ভর করে উন্নতি করতে পারে না. তিনি মেনে নিয়েছেন যে, এর আগে যা কিছু সোভিয়েত ব্যবস্থায় সেই সময়ের কুশলী ও বিজ্ঞানীরা তৈরী করেছিলেন, তার উপরই নির্ভর করে বর্তমানের রাশিয়া ভাসমান অবস্থায় আছে, কিন্তু এই সবই আজ বাস্তবে ও মানসিক ভাবে পুরনো হয়ে গেছে. সময় এসেছে বর্তমান প্রজন্মের রাশিয়াকে নতুন ও আরও আধুনিক সভ্যতার স্তরে উন্নত করার. রাষ্ট্রপতি বিশেষ করে বলেছেনঃ

    "একবিংশ শতাব্দীতে আমাদের রাশিয়ার আবার প্রয়োজন সার্বিক আধুনিকীকরণের, আর এটা আমাদের দেশের ইতিহাসে হবে প্রথম ও নতুন আধুনিকীকরণের অভিজ্ঞতা, যার ভিত্তি হবে গণতান্ত্রিক কেন্দ্র ও মূল্যবোধ. সেই ধরনের রাষ্ট্র ব্যবস্থা যেখানে নেতারা জনতার জন্য সব কিছু চিন্তা করে নিজেরাই সব সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন, তার বদলে আনতে হবে এক সমাজ যেখানে সমাজে বুদ্ধিমান, স্বাধীন এবং দায়িত্বশীল লোকেরা থাকেন. অপরিস্কার কাজকর্ম, যা পুরনো সময়ের স্মৃতিতে ভারাক্রান্ত বা বাস্তবের সঙ্গে সম্পর্ক বিহীণ বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে করা হয়ে থাকে, তার জায়গায় সম্পূর্ণ ভাবে বাস্তবের উপর ভিত্তি করে আভ্যন্তরীন ও পররাষ্ট্র বিষয়ক রাজনীতিকে লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য ব্যবহার করতে হবে. অতীতের রাশিয়ার জায়গায় গড়তে হবে নতুন রাশিয়া, আধুনিক, ভবিষ্যতের ভালর জন্য লক্ষ্য করে নতুন রাষ্ট্র, যে দেশ বিশ্বের কর্মক্ষেত্রে নিজের জায়গা তার ক্ষমতার উপর নির্ভর করে দখল করে নেবে".

    রাষ্ট্রপতি বিশেষভাবে উল্লেখ করেছেন, তিনি এই জাতীয় সভার ভাষণের আগে রাশিয়ার মানুষের কাছে প্রশ্ন রেখেছিলেন, কি করে রাশিয়ার সমাজ জীবনে গুণগত পরিবর্তন করা সম্ভব, সেই বিষয়ে একসাথে চিন্তা করে মত দিতে, কি করে এই দেশকে আবার বিশ্বে নেতৃত্বের জায়গা দেওয়ানো যায়. এই খোলা আলোচনাতে তিনি পেয়েছেন অনেক অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রস্তাব, শিক্ষা ব্যবস্থা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতি, সরকারি প্রশাসনকে ফলপ্রসূ করা এবং রাজনৈতিক ও বিচার পদ্ধতিকে উন্নত করার পথের সন্ধান. এই আলোচনার বহু অংশগ্রহণ কারীর মতই তিনি তাঁর বার্তা তৈরীর সময় ব্যবহার করেছেন, যা কার্যকরী করতে পারলে সুপরিকল্পিত পদক্ষেপ নিয়ে রাশিয়ার আধুনিকীকরণকে সার্বিক ব্যবস্থা হিসাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে.