মস্কোর রেড স্কোয়ারে আজ অনুষ্ঠিত হল ৬৪ তম ঐতিহাসিক সেই প্যারেড.১৯৪১ সনের এই দিনে তত্কালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সৈন্যরা এই রেড স্কোয়ার থেকেই প্যারেডের মধ্য দিয়ে ২য় বিশ্ব যুদ্ধে অগ্রসর হয়.
ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় এ উত্সব এ বছরে পা দিল গৌরবময় ৬৮তম বছরে .এ বারের এ প্যারেডে সেই ১৯৪১ সনে উপস্থিত থাকা ৪৫ জন বীরও ছিলেন.
সেই ৬৮ বছর আগে,তখন মস্কো ছিল গুরুত্বপূর্ণ স্থান.চারিদিকে যুদ্ধের বিভীষিকা.শত্রুপক্ষ মস্কোর চারিদিকে প্রায় ঘিরে ফেলেছে.পরিস্থিতিকে সামাল দিতে দ্রুত মস্কোর রেড স্কোয়ারে সোভিয়েত সৈন্যবাহিনীদের গন প্যারেড আহবান করা হয়. এ বিষয়ে কথা হয় স্বরাষ্ট্র একাডেমীর প্রেসিডেন্ট লিওনিদ ইবাশোবের সাথে.তিনি বলেন- “আমাদের সৈন্যবাহিনী হিটলারের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পরে.আমাদের সৈন্যরা প্রমাণ করেছে যে তারা মাতৃভূমির রাজধানীকে শত্রুমুক্ত করতে যেকোন পরিস্থিতি মোকাবিলা করার যোগ্যতা রাখে.আর আমাদের সৈন্য বাহিনীরা এই রেড স্কোয়ার থেকেই যুদ্ধে অগ্রসর হয়েছে”.
এ দিনটির কথা স্মরন করেই তাই প্রতি বছর ৭ নভেম্বর প্যারেড অনুষ্ঠিত হয় রেড স্কোয়ারে.এই প্যারেড ২য় বিশ্ব যুদ্ধে আমাদের সৈন্য বাহিনীদের মনে দেশপ্রেম আর মাতৃভূমির প্রতি ভালবাসায় উদ্বুদ্ধ করেছে .যুদ্ধের ঐ কষ্টকর মুহূর্তগুলো আজ আবারও এই প্যারেডের মধ্যে দিয়ে খুঁজে পেলাম আমরা.
১৯৪১ সনের ৭ নভেম্বর ঐ প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়েছিল ১ ঘন্টা ১ মিনিট ২০ সেকেন্ড.
মস্কোর রেড স্কোয়ারে আজ সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠিতব্য প্যারেডে প্রায় ৪ হাজার সশস্ত্র বাহিনী অংশ গ্রহন করে.এছাড়াও সশস্ত্র বাহিনীর সঙ্গীত দল,ক্যাডোটও উপস্থিত ছিল.
এদিকে ২য় বিশ্ব যুদ্ধে নিহত সৈনিকদের সমাধিতে পুষ্পঅর্পন ও বিশেষ প্রার্থনা করা হবে.
বিকেলে বালশোম থিয়েটারে মহান দেশপ্রেম যুদ্ধের ৪৫ জন বীরদের সম্মানে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে.