আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে শিল্পগত উন্নয়ন মন্দাভাব থেকে কিছুটা হলেও পুনরুদ্ধার হতে শুরু হয়েছে.এমনই সিদ্ধান্তের কথা জানাল যুক্তরাষ্ট্রের ফেডেরাল রিজার্ভেশন সিস্টেম.পরিসংখ্যানে জানানো হয় যে, গত সেপ্টেম্বরে এ শিল্পগত উন্নয়ন ছিল ০.৭ ভাগ.আর তা ইনভেস্টরদের মাঝে কিছুটা হলেও আশা জাগিয়েছে.আর এর প্রথম অনুধাবন হচ্ছে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধি.যা গত বছরের ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত বৃদ্ধি পাওয়া সর্বোচ্চ মূল্য.
নিউইর্য়ের স্টক একচেন্জে শেয়ার বাজারের মূ্ল্য অভূতপূর্ব বৃদ্ধি পেয়েছে.ডিজেলের মূল্য ব্যারেল প্রতি বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১ ডলার.গত কয়েক মাসের সব রেকর্ড ভেঙ্গে দ্য়ে শুক্রবার জ্বালানী তেলের মূল্য দাড়ায় ব্যারেল প্রতি ৭৮ মার্কিন ডলার ৫৩ সেন্ট.
অর্থনৈতিক মন্দাভাবের পর আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে শিল্প উন্নয়নের ধারাবাহিকতা প্রায় তিন মাসে পদার্পন করল.আর সেই কারনেই বিশেষজ্ঞদের মতে জ্বালানী তেলের মূল্য অক্টবরের মাঝামাঝিতে ১৩ ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে গত সেপ্টেম্বরের মূল্য থেকে.
কি কারনে জ্বালানী তেলের মূল্য এত দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে?এ বিষয়ে রাশিয়ার রপ্তানী বিশেষজ্ঞ নাতালিয়া শুলার মনে করেন যে, আন্তর্জাতিক বাজারে মার্কিন ডলারের মূল্য ক্রমাগত হ্রাস পাওয়া.তিনি বলেন-
“নিঃসন্দেহ ভাবে এটা বলা যায় যে অপেক,জ্বালানী তেল রপ্তানীকারক দেশ এবং সেই অর্থে রাশিয়া সর্বদাই চাইবে তেলের সর্বোচ্চে মূল্য পেতে.এবং এটা সবার কাছেই পরিস্কার.আর এখন বর্তমানে এ পরিস্থিতিতে অপেক কী সিদ্ধান্ত নেয় সেটাই এখন দেখার বিষয়”.
এদিকে ইউরোপের বিশেষজ্ঞরা ধারনা করছেন যে ,উত্তর-পূর্ব ইউরোপে ও যুক্তরাষ্ট্রে শরতেই অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পরায় আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে.
<sound>