বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কটের মোকাবিলার প্রচেষ্টা, অর্থনৈতিক ও মানবিক সহযোগিতার সম্প্রসারণ, যৌথ প্রচেষ্টা বিশ্বের প্রাথমিক সমস্যার সিদ্ধান্ত খোঁজায়, এই সবই আজ বেইজিং শহরে আয়োজিত সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ নেতৃত্বের অধিবেশনের মূল আলোচ্য বিষয়.

এই অধিবেশনে যোগ দিতে এসেছেন রাশিয়া, কাজাখস্থান, কিরগিজিয়া, চীন, তাজিকিস্থান ও উজবেকিস্থানের প্রধান মন্ত্রীরা, এ ছাড়া উপস্থিত রয়েছেন পর্যবেক্ষক দেশ গুলির, যেমন, ভারত, ইরান, মঙ্গোলিয়া ও পাকিস্থানের শীর্ষ স্থানীয় নেতৃত্বের প্রতিনিধিরা. রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন বেইজিং অধিবেশনে বক্তৃতা দিতে গিয়ে বলেছেন, বর্তমানের অধিবেশনে আজ সদস্য দেশগুলির প্রধানমন্ত্রীরা যৌথ ভাবে বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কটের মোকাবিলার পরিকল্পনা প্রকাশ করবেন.

প্রধানমন্ত্রী বলেছেনঃ "আমরা সঙ্কট পরবর্তী সময়ের সমস্ত সুবিধা ও সুযোগ সম্পূর্ণভাবে সদ্ব্যবহার করতে চাই, আর তা করার জন্য ভাল ভিত্তি হল আজকে প্রকাশিতব্য যৌথ ভাবে নেওয়া বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কট মোকাবিলার জন্য উদ্যোগ. এই দলিল সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার পরিসরে সঙ্কটের মোকাবিলার জন্য সংগঠিত ব্যবস্থা নিতে সাহায্য করবে. বিশেষ করে আমাদের সব দেশ গুলির বিশিষ্ট করে দেওয়া সংস্থা গুলি এর ফলে উপকৃত হবে. রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ব্যাখ্যা করেছেন যে একটি বিশেষ কার্যকরী কমিটি তৈরী হচ্ছে, যাদের কাজ হবে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার বহু দেশীয় আর্থ – বাণিজ্যিক সহযোগিতার সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা গুলিকে বাস্তবায়িত হতে সাহায্য করা".

সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার কর্ম কাণ্ডের আরো একটি দিক সম্বন্ধে আমাদের রেডিও কে তাঁর সাক্ষাত্কারের সময় এই সংস্থার ব্যবসায়ী পরিষদের উপ মুখ্য সচিব দেনিস ত্যুরিন বলেছেনঃ

"এই বিষয় টি হল ক্ষুদ্র ও মাঝারি মাপের শিল্পের মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানোর জন্য সক্রিয় প্রচেষ্টা – সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার জন্য এই দিকটি একেবারেই অনাবিষ্কৃত অঞ্চল. যদিও কয়েকদিন আগে আমরা এই কাজের জন্য একটি বিশেষ কর্ম সমিতি বানিয়েছি. তাও এখনও বিশেষ কিছু করে ওঠা সম্ভব হয় নি, যাতে আমাদের দেশ গুলির ক্ষুদ্র ও মাঝারি মাপের উদ্যোগ গুলি একে অপরের মাধ্যমে লাভজনক সরাসরি যোগাযোগ তৈরী করতে পারে. কিছু দিনের মধ্যেই মস্কোতে ব্যবসায়ীদের জন্য একটি ক্লাব গঠন করা হবে, যার কাজই হবে এক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানো".

পর্যবেক্ষকদের মতে বর্তমানে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থা রাজনৈতিক বিষয়ের বদলে বেশী মনোযোগ দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়ে. কারণ বোধগম্য. রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর মতে সা.স.স. বর্তমানে বিশ্বে একটি সম্মানিত সংস্থায় পরিণত হতে পেরেছে এবং অন্যন্য দেশ এই সংস্থার সদস্য হতে আগ্রহী. এই কাঠামোতে সা.স.স. নিজেদের প্রচেষ্টায় অর্থনৈতিক সঙ্কটের মোকাবিলা করতে পারে. (sound)